• শুক্রবার , ১৯ জুলাই ২০১৯

আজ যে চ্যানেলে দেখাবে বাংলাদেশ-ভারত ম্যাচ

বাংলাদেশের সামনে আরও একটি ভারত ম্যাচ। বিশ্বকাপের প্রস্তুতি হলেও অতীত ইতিহাস সাক্ষ্য দিচ্ছে আজ মঙ্গলবার কার্ডিফে হাইভোল্টেজ ম্যাচই অপেক্ষা করছে দুদলের জন্য। টাইগারদের পয়মন্ত ভেন্যু সোফিয়া গার্ডেনে ম্যাচ শুরু বাংলাদেশ সময় বিকাল সাড়ে ৩টায়। সরাসরি সম্প্রচার করবে স্টার স্পোর্টস-১। দুইবার বিশ্বকাপ জিতেছে ভারত। অন্যদিকে বাংলাদেশের সর্বোচ্চ সাফল্য গত আসরে কোয়ার্টার ফাইনাল খেলা। এবার অবশ্য রাখা হচ্ছে সেমিতে খেলার আশাবাদ। সার্বিক শক্তির বিবেচনায় দুটি দলের মধ্যে অনেক পার্থক্য থাকলেও মুখোমুখি লড়াইয়ের মওকা এলেই যেন সমান্তরালে চলে আসে কোহলি-মাশরাফীদের মহারণ!গত রোববার পাকিস্তানের বিপক্ষে বাংলাদেশের প্রথম প্রস্তুতি ম্যাচ বৃষ্টিতে ভেসে গেছে। বিশ্বকাপ অভিযানে নামার আগে ভারতের বিপক্ষে ম্যাচটিই একমাত্র সুযোগ তামিম-সাকিবদের ব্যাটে-বলে ঝালিয়ে নেয়ার জন্য। ভিন্ন কন্ডিশনে আয়ারল্যান্ডে ত্রিদেশীয় সিরিজ জিতে আত্মবিশ্বাসে সওয়ার হয়ে টাইগাররা বিশ্বকাপের দেশে এলেও এখানকার কন্ডিশনে তো কিছুটা ভিন্নতা থাকবেই।

ব্যাটসম্যানদের জন্য উইকেটের বাউন্স, বোলারদের জন্য সঠিক লেন্থ বুঝে নেয়া যে জরুরী আসল মিশন শুরুর আগে। ৮ জুন এই মাঠেই স্বাগতিক ইংল্যান্ডের বিপক্ষে বিশ্বকাপের মহাগুরুত্বপূর্ণ ম্যাচ বাংলাদেশের। তার আগে টাইগারদের প্রথম দুটি ম্যাচ ওভালে ২ ও ৫ জুন, প্রতিপক্ষ যথাক্রমে সাউথ আফ্রিকা আর নিউজিল্যান্ড।বিশ্বকাপের ম্যাচে কোহলির ভারতের সঙ্গে মাশরাফীদের দেখা হবে বার্মিংহামে, আগামী ২ জুলাই। ততদিনে প্রায় ঠিক হয়ে যাবে বিশ্বকাপের সেমিফাইনালিস্ট কারা কারা হতে যাচ্ছে। ভারতের বিপক্ষে ম্যাচটি হবে বাংলাদেশের আট নম্বর ম্যাচ। নয় নম্বর অর্থাৎ শেষ ম্যাচটি লর্ডসে, ৫ জুলাই পাকিস্তানের বিপক্ষে।

প্রথম প্রস্তুতি ম্যাচে নিউজিল্যান্ডের কাছে পাত্তাই পায়নি ভারত। ১৭৯ রানে গুটিয়ে গিয়ে হেরেছে ৬ উইকেটে। তারপরও ফেভারিট তকমা তাদের দিকেই।

২০০৫ সালে অস্ট্রেলিয়া ও গত চ্যাম্পিয়নন্স ট্রফিতে নিউজিল্যান্ডকে হারানোর ভেন্যু কার্ডিফ থেকেই শুরু হয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশের বিশ্বকাপ যাত্রা। প্রস্তুতির আদলে সৌভাগ্যের সেই মাঠেই খুলে যাক ভারত-বধের গেরো, এমন প্রত্যাশার পিঠে প্রাপ্তির পাতায় চোখ থাকবে সবার!

আয়ারল্যান্ডে ত্রিদেশীয় সিরিজ জিতে আত্মবিশ্বাসী বাংলাদেশ আরও উদ্যমী হয়ে ওঠার রসদ পেতে পারে ভারতকে হারালে। দলের সিনিয়র-জুনিয়র সকল ক্রিকেটারের কাছেই ভারতের বিপক্ষে জয় বিশেষ কিছু। আসল লড়াইয়ে লন্ডন যাওয়ার আগে সবচেয়ে বড় টনিকটা বাংলাদেশ তাই নিয়ে যেতে পারে কার্ডিফ থেকেই।

সাম্প্রতিক সময়ে ক্রিকেটে বাংলাদেশ-ভারত মুখোমুখি হওয়া মানেই হরেক নাটকীয়তার পর শেষ বলে ম্যাচের ফয়সালা! সবশেষ এশিয়া কাপ ও নিধাস ট্রফির ফাইনালে সেটাই হয়েছে। টানটান উত্তেজনার সঙ্গে স্নায়ুর কঠিন পরীক্ষা। তাতে গত দুবারই জয়ী দলটির নাম ভারত।

২০১৬ সালে বেঙ্গালুরুতে টি-টুয়েন্টি বিশ্বকাপের ম্যাচটি যোগ করলে তিন বছরে তিনটি হৃদয়বিদারক হারের সাক্ষী বাংলাদেশের ক্রিকেটপ্রেমীরা। ভারতের বিপক্ষে বারবার লেখা হয়েছে তীরে এসে তরী ডোবার গল্প

Related Posts

Leave A Comment