• সোমবার , ১৮ নভেম্বর ২০১৯

বাংলাদেশ-ভারতের দ্বিতীয় ম্যাচ নিয়ে আশা জেগেছে

দিল্লি জয় করে গুজরাটে বাংলাদেশ। রাজধানীর দূষণকে পরাস্ত করে রাজকোটে মাটিতে নামতে চলেছে টাইগাররা। তার আগে প্রতিপক্ষ হয়ে দাঁড়িয়েছে ঘূর্ণিঝড় ‘মহা’। এই কারণে ম্যাচ বাতিলের সম্ভাবনাও তৈরি হয়েছে। যদিও এই ম্যাচ আয়োজন নিয়ে আশাবাদী স্টেডিয়াম কর্তৃপক্ষ।চলতি সপ্তাহেই গুজরাট উপকূলে ঘূর্ণিঝড়টি আছড়ে পড়তে চলেছে। যা নিয়ে সতর্ক অবস্থানে স্থানীয় প্রশাসন। এই মুহূর্তে ঘূর্ণিঝড় ‘মহা’র অবস্থান আরব সাগরে। আবহাওয়া অধিদপ্তর জানিয়েছে, বুধবার রাতে অথবা বৃহস্পতিবার সকালে গুজরাট উপকূলে আছড়ে পড়ার আশঙ্কা রয়েছে। তবে সুসংবাদটি হচ্ছে গুজরাটে প্রবেশ করে শক্তি হারাবে ‘মহা’। এমটাই জানানো হয়েছে। ঘণ্টায় একশো কিলোমিটার বা তার বেশি গতিতে ঝড়ো হাওয়া বইতে পারে। শক্তি ক্ষয়ের পর মহা ক্রমেই গভীর নিন্মচাপে পরিণত হবার সম্ভাবনা রয়েছে। তাই ম্যাচের দিন রাজকোটে ভারী থেকে অতিভারী বৃষ্টিপাত হতে পারে। ভারতীয় গণমাধ্যমগুলোর মতে, ৬ ও ৭ নভেম্বর বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনার রয়েছে। এমনটা হলে প্রাকৃতিক বিপর্যয়ের কারণে রাজকোটে বাংলাদেশ-ভারতের টি-টোয়েন্টি ম্যাচ ভেস্তে যেতে পারে। সেক্ষেত্রে সিরিজের ফয়সলা হতে পারে তৃতীয় ও শেষ ম্যাচে। ১০ নভেম্বর নাগপুরের ভিসিএ স্টেডিয়ামে স্বাগতিক ভারতের বিপক্ষে শেষ ম্যাচটিতে নামবে বাংলাদেশ।সৌরাষ্ট্র ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন স্টেডিয়াম কর্তৃপক্ষ তাকিয়ে রয়েছে আবহাওয়ার পরবর্তী আপডেটের ওপর। এক সিনিয়র কর্মকর্তার বরাতে সংবাদ সংস্থা পিটিআই জানাচ্ছে, আমরা ম্যাচটি আয়োজনের জন্য সর্বোচ্চ প্রস্তুতি গ্রহণ করেছি। পাশাপাশি নজর রাখছি আবহাওয়া সংবাদের দিকেও। সন্ধ্যায় শুরু হবে ম্যাচটি। নিজেদের রয়েছে উন্নত ড্রেনেজ ব্যবস্থাও। এই কারণে আশাবাদী স্টেডিয়াম কর্তৃপক্ষও। ওই কর্তা আরও বলেন, ৭ নভেম্বর বৃহস্পতিবার সকালে বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। যদিও খেলাটি শুরু হবে সন্ধ্যায় (বাংলাদেশ সময়  সাড়ে সাতটায়)। আশাকরি তার আগেই বৃষ্টি কমে যাবে। আমাদের ড্রেনেজ ব্যবস্থাও বেশ উন্নত। সব মিলিয়ে একটি সুন্দর ম্যাচ হতে পারে এটি।এদিকে মঙ্গলবার সকাল থেকে অনুশীলন করেছে বাংলাদেশ দল। রৌদ্রজ্জ্বল আবহাওয়া বিরাজ করছে গুজরাটের অন্যতম প্রধান শহর রাজকোটে।

Related Posts

Leave A Comment