• শুক্রবার , ১৯ জুলাই ২০১৯

ভারতীয় পরিচয়ে দুই বাংলাদেশি

 

f87ab8a6xc759x4

নিউজ ডেস্ক : ভারতের অন্য রাজ্যে কিছুদিন বসবাস করে, সেখানকার নাগরিক হিসেবে জাল ভোটার, প্যান, আধার কার্ড তৈরি করে ফেলছে বাংলাদেশিরা। সেই নথি দাখিল করে সহজেই ভারতীয় পাসপোর্ট বানিয়ে ফেলছে। পেট্রাপোল সীমান্তে এমন দুটি ঘটনা ধরা পড়ায় চিন্তার ভঁাজ কেন্দ্র ও রাজ্য সরকারের প্রশাসনিক মহলে।
বাংলাদেশের নড়াইল জেলার বাসিন্দা, দরিদ্র পরিবারের যুবতী সাদিয়া খানম ২০১২ সালে চোরাপথে ভারতে এসে বেঙ্গালুরুতে এক পরিচিতের বাড়িতে পরিচারিকা হিসেবে আশ্রয় নেয়।

বছরখানেক কাজ করে কিছু টাকা জোগাড় করে ফের সে চোরাপথে বাংলাদেশের বাড়িতে ফিরে যায়। এরপর সেখান থেকে বাংলাদেশি নাগরিক হিসেবে পাসপোর্ট বানিয়ে সে ফের ভারতের বেঙ্গালুরুতে যায়। সেখানে দালাল মারফত ভারতীয় নাগরিক হিসেবে ‘‌সুমি’‌ নাম নিয়ে নিজের নামে ভারতীয় ভোটার, প্যান, আধার কার্ড বানিয়ে ফেলে।

সেই জাল নথি দাখিল করে নিজের নামে ভারতীয় পাসপোর্টও বানিয়ে ফেলে। বৃহস্পতিবার সেই পাসপোর্ট নিয়ে বাংলাদেশে যাওয়ার সময় সে অভিবাসন দপ্তরের হাতে ধরা পড়ে যায়।

বাংলাদেশের বগুড়া জেলার বাসিন্দা ফরকানুল ইসলাম নামে এক যুবক কাজের সন্ধানে সৌদি আরবে যাওয়ার পরিকল্পনা করে। তার ধারণা ছিল, বাংলাদেশির বদলে একজন ভারতীয় হিসেবে সৌদি আরবে যাওয়ার জন্য পাসপোর্ট তৈরি করলে বেশি সুবিধা পাওয়া যাবে। আর তাই সে বাংলাদেশি পাসপোর্ট নিয়ে ২৫ ফেব্রুয়ারি পেট্রাপোল সীমান্ত দিয়ে ভারতে প্রবেশ করে। সেখান থেকে সে বেঙ্গালুরুতে এক পরিচিত ব্যক্তির কাছে ওঠে। সেখানে বসেই সে নিজেকে একজন ভারতীয় নাগরিক হিসেবে নিজের নামে জাল ভারতীয় ভোটার, প্যান, আধার কার্ড বানিয়ে সেই নথি দাখিল করে ভারতীয় পাসপোর্টও বানিয়ে ফেলে।

ইতিমধ্যে বিশেষ কাজে সে ২৩ মে পেট্রাপোল সীমান্ত দিয়ে বাংলাদেশে যাচ্ছিল। সীমান্তে কাগজপত্র পরীক্ষা করার সময় সে ধরা পড়ে যায়।
দু’‌দিনের ব্যবধানে সীমান্তে এমন দুটি ঘটনা ধরা পড়ার পর অবাকই হয়েছেন অভিবাসন দপ্তরের আধিকারিকেরা। পাসপোর্টের মতো এমন গুরুত্বপূর্ণ নাগরিকত্বের নথি কীভাবে এত সহজে ভারতের মাটিতে বসে একজন বাংলাদেশি নাগরিক ভারতীয় হিসেবে নিজেকে প্রমাণ করে, তা তৈরি করে ফেলছে, সেই বিষয়টি বিশেষভাবে ভাবিয়ে তুলছে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রককে।

 

Related Posts

Leave A Comment