• বুধবার , ২৭ মে ২০২০

সরদার জয়েনউদ্দীন এর জীবনী ও সাহিত্যকর্ম

তিনি ছিলেন মূলত কথা সাহিত্যিক। তিনি একজন বাংলাদেশী লেখক, ঔপন্যাসিক, গল্পাকার ও সম্পাদক হিসেবে পরিচিত। তিনি ছোটবেলা থেকেই সাহিত্যের প্রতি অনুরাগী ছিলেন। তাঁর রচনায় গণমানুষের কল্যাণ ও মুক্তিচিন্তার পাশাপাশি সমকালীন সমাজ ও রাজনীতিবিষয়ক ঘটনাবলিও প্রাধান্য পেয়েছে।সরদার জয়েনউদ্দীন এর জীবনী

সমকালীন সমাজের সংকট, মানবিক মূল্যবোধের অবক্ষয়, গ্রামীণ সমাজের অবহেলিত মানুষের দুঃখ বেদনা তাঁর সাহিত্যের মূল উপজীব্য।

  • বিশিষ্ট এই লেখক জন্মগ্রহণ করেন – ১৯১৮ সালে।
  • বিশিষ্ট এই সাহিত্যিকের পৈত্রিক নিবাস – ব্রিটিশ ভারতের (বর্তমান বাংলাদেশ) পাবনা জেলার সুজানগর উপজেলার কামারহাটি গ্রামে।
  • বিশিষ্ট এই লেখকের প্রকৃত নাম – মুহম্মদ জয়েনউদ্দীন বিশ্বাস।
  • অন্যতম এই লেখকের শিক্ষাজীবন – ১৯৩৯ সালে খলিলপুর হাইস্কুল থেকে ম্যাট্রিক পাশ করেন। পরে পাবনা এডওয়ার্ড কলেজে আইএ পর্যন্ত অধ্যয়ন করেন।
  • সেনাবাহিনীতে হাবিলদার কেরানিপদে যোগদানের মাধ্যমে তিনি কর্মজীবন শুরু করেন – ১৯৪১ সালে।
  • তিনি ’অবজারভার’ পত্রিকার বিজ্ঞাপন বিভাগে যোগ দেন – ১৯৪৮ সালে।
  • তিনি ‘দৈনিক সংবাদ’ এর বিজ্ঞাপন বিভাগে ম্যানেজার পদে নিয়োগ পান – ১৯৫১ সালে।
  • তিনি ’দৈনিক ইত্তেফাকে’ যোগ দেন – ১৯৫৪ সালে।
  • তিনি শিশুকিশোর ম্যাগাজিন সেতার ও শাহীনের সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেন – ১৯৫৫-৫৬ সাল পর্যন্ত।
  • তিনি ‘বাংলা একাডেমি’ এর সহকারী প্রকাশনা কর্মকর্ত হিসেবে চাকরি করেন – ১৯৬২ সালে।
  • তিনি সেন্ট্রাল পাবলিক লাইব্রেরীতে (বর্তমানে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগার) শিশুগ্রন্থমেলার আয়োজন করেন – ১৯৬৫ সালে।

সরদার জয়েনউদ্দীন এর জীবনী ও সাহিত্যকর্ম

  • বাংলাদেশের গ্রন্থমেলার সূচনা করেন – সরদার জয়েনউদ্দীন।
  • তিনি নারায়ণগঞ্জে গ্রন্থমেলার আয়োজন করেন – ১৯৭০ সালে।
  • একুশে গ্রন্থমেলা আনুষ্ঠানিকভাবে আয়োজিত হয়ে আসছে – ১৯৮৪ সাল থেকে।
  • তাঁর প্রথম গল্পগ্রন্থের নাম – ‘নয়ান ঢুলি’।
  • ’নয়ান ঢুলি’ গল্পগ্রন্থটি প্রকাশিত হয় – ১৯৫২ সালে।
  • তিনি সমকালীন সামাজিক সংকট, মানবিক মূল্যবোধের অবক্ষয়, গ্রামের অবহেলিত মানুষের সুখ-দুঃখের চিত্র, জমিদার-জোতদারদের শোষণ-নিপীড়ন তুলে ধরেছেন – ”নয়ান ঢুলী” গল্পগ্রন্থে।
  • ’খরস্রোত’ কোন জাতীয় রচনা – গল্পগ্রন্থ।
  • ’খরস্রোত’ গল্পগ্রন্থের রচয়িতা – সরদার জয়েনউদ্দীন।
  • ’খরস্রোত’ গল্পগ্রন্থটি প্রকাশিত হয় – ১৯৫৫ সালে।
  • তাঁর অন্যান্য গল্পগ্রন্থের মধ্যে রয়েছে – ‘বীর কণ্ঠীর বিয়ে’ (১৯৫৫), ‘বেলা ব্যানার্জীর প্রেম’ (১৯৬৮), ‘অষ্টপ্রহর’ (১৯৭৩) প্রভৃতি।
  • তাঁর প্রথম উপন্যাস – ’আদিগন্ত’।
  • ’আদিগন্ত’ ‍উপন্যাসটি প্রকাশিত হয় – ১৯৫৬ সালে।
  • তিনি তৎকালীন হিন্দুসমাজের দুরবস্তার কথা তুলে ধরেছেন – ’আদিগন্ত’ উপন্যাসে।
  • ’অনেক সূর্যের আশা’ কোন জাতীয় রচনা – উপন্যাস।
  • ’অনেক সূর্যের আশা’ উপন্যসের রচয়িতা – সরদার জয়েনউদ্দীন
  • ’অনেক সূর্যের আশা’ উপন্যাসটি প্রকাশিত হয় – ১৯৬৬ সালে।

সরদার জয়েনউদ্দীন এর জীবনী ও সাহিত্যকর্ম

  • ‘অনেক সূর্যের আশা’ উপন্যাসের পটভূমি – দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ এবং স্বাধিকার আন্দোলনের পটভূমিকায় বিস্তৃত পরিসরে রচিত।
  • বিস্তৃত ক্যানভাসের যুদ্ধ, দুর্ভিক্ষ, দাঙ্গা, মানুষের নৈতিক অধঃপতন, আর্থিক সঙ্কট, মানুষের জীবনযুদ্ধের বহুবিধ চিত্র অঙ্কিত হয়েছে – তাঁর “অনেক সূর্যের আশা” উপন্যাসে।
  • তাঁর শ্রেষ্ঠ উপন্যাস – ”অনেক সূর্যের আশা”।
  • তাঁর উল্লেখযোগ্য উপন্যাসের মধ্যে রয়েছে – ‘নীল রং রক্ত’ (১৯৫৬), ‘পান্নামতি’ (১৯৬৪), ‘বেগম শেফালী মির্জা’ (১৯৬৮), ’বিধ্বস্ত রোদের ঢেউ’ (১৯৭৫) এবং ‘কদম আলীর বাড়ি’ প্রভৃতি।
  • ’উল্টো রাজার দেশ’ কোন জাতীয় রচনা – শিশুসাহিত্য।
  • ’উল্টো রাজার দেশ’ গ্রন্থের রচয়িতা – সরদার জয়েনউদ্দীন।
  • ’অবাক অভিযান’ কোন জাতীয় রচনা – শিশুতোষ গ্রন্থ।
  • ’অবাক অভিযান’ শিশুতোষ গ্রন্থের রচয়িতা – সরদার জয়েনউদ্দীন।
  • ’আমরা তোমাদের ভুলব না’ কোন জাতীয় রচনা – শিশুসাহিত্য।
  • তিনি সাহিত্যে অবদানের জন্য বাংলা একাডেমী পুরস্কার লাভ করেন – ১৯৬৭ সালে।
  • তিনি কথাসাহিত্যে আদমজী সাহিত্য পুরস্কার লাভ করেন – ১৯৬৭ সালে।
  • বিশিষ্ট এই লেখক মরণোত্তর ‘একুশে পদক’ লাভ করেন – ১৯৯৪ সালে।
  • বিশিষ্ট এই লেখক মৃত্যুবরণ করেন – ২২ ডিসেম্বর, ১৯৮৬ সালে ঢাকায়।

Related Posts

Leave A Comment