ইংল্যান্ডের কাছে পাত্তাই পেল না আফগানিস্তান।

ইংল্যান্ডের কাছে পাত্তাই পেল না আফগানিস্তান। ব্যাটে বলে অসাধারণ পারফর্ম করেন ইংলিশ ক্রিকেটাররা। জোফরা আর্চার ও জো রুটের বোলিংয়ের সামনে ১৬০ রানে অলআউট আফগানিস্তান।

টার্গেট তাড়া করতে নেমে মাত্র ১৭.৩ ওভারেই এক উইকেট হারিয়ে জয়ের বন্দরে পৌঁছে যায় ইংল্যান্ড। দলের জয়ে দুর্দান্ত ব্যাটিং করেন জেসন রয়। তিনি সর্বোচ্চ ৮৯ রান করে অপরাজিত থাকেন। তার ইনিংসটি ৪৬ বলে ১১টি চার ও ৪টি ছক্কায় সাজানো।

এছাড়া ২২ বলে ৩৯ রান করে আউট হন অন্য ওপেনার জনি বেয়ারস্টো। ৩৭ বলে ২৯ রানে অপরাজিত থেকে দলের জয় নিশ্চিত করে মাঠ ছাড়েন জো রুট।

বলতে গেলে আফগানিস্তানের কারণেই সেঞ্চুরির সুযোগ হাতছাড়া হয় জেসন রয়ের। ইংল্যান্ডের এ ওপেনার যে গতিতে ব্যাট করেছেন, তার সেঞ্চুরি ছিল সময়ের অপেক্ষা। কিন্তু মামুলি স্কোরের কারণে সেঞ্চুরি করা হয়নি জেসন রয়ের।

১৬০ রানে অলআউট আফগানিস্তান

বিশ্বকাপের প্রস্তুতি ম্যাচে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ১৬০ রানে অলআউট আফগানিস্তান। ইংল্যান্ডের সম্ভাবনাময়ী তরুণ তারকা পেসার জোফরা আর্চারের গতি আর জো রুটের স্পিনে কাবু হয়ে নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারায় আফগানরা।

সোমবার ইংল্যান্ডের কিংস্টন ওভালে অনুষ্ঠিত ম্যাচে টস হেরে প্রথমে ব্যাটিংয়ে নেমেই বিপর্যয়ে পড়ে যায় আফগানিস্তান। ১২৭ রানে ৯ উইকেট হারিয়ে চরম বিপদে পড়ে যাওয়া দলের স্কোর শেষ পর্যন্ত ১৬০ নিয়ে যান সাবেক অধিনায়ক মোহাম্মদ নবী। শেষ উইকেটে দৌলত জাদরানের সঙ্গে ৩৩ রানের জুটি গড়েন তিনি।

তাদের ছোট এবং কার্যকরী জুটির কল্যাণে দেড়শ পার হতে সক্ষম হয় আফগানিস্তান। দলের হয়ে সর্বোচ্চ ৪৪ রান করেন মোহাম্মদ নবী। তার ইনিংসটি ৪২ বলে তিনটি ছক্কা ও একটি চারে সাজানো।

এছাড়া ১৭ বলে ২০ রান করে অপরাজিত দৌলত জাদরান। ৩৪ বলে ৩০ রান করেন ওপেনার নুর আলী জাদরান।

ইংল্যান্ডের হয়ে জোফরা আর্চার ৫.৪ ওভারে ৩২ রানে শিকার করেন ৩ উইকেট। এছাড়া ৬ ওভারে ২২ রানে ৩ উইকেট নেন জো রুট।

সংক্ষিপ্ত স্কোর

আফগানিস্তান: ৩৮.৪ ওভারে ১৬০/১০ (মোহাম্মদ নবী ৪৪, নুর আলী জাদরান ৩০, দৌলত জাদরান ২০*; জোফরা আর্চার ৩/৩২, জো রুট ৩/২২)।

ইংল্যান্ড: ১৭.৩ ওভারে ১৬১/১ (জেসন রয় ৮৯*, জনি বেয়ারস্টো ৩৯, জো রুট ২৯)।

ফল: ইংল্যান্ড ৯ উইকেটে জয়ী।

Leave a comment

Your email address will not be published.