উওেজনাকার ম্যাচে জয় পায় দিল্লি।

শেষ ওভারে জয়ের জন্য ১৫ রান দরকার ছিল রাজস্থানের৷ বোল্টের প্রথম বল ওয়াইড, ও চতুর্থ বলে উইকেট ছাড়াও মাঝে বলগুলোতে রান ওঠে যথাক্রমে ১, ২, ১ ও ৪৷ অর্থাৎ শেষ বলে ছক্কা মারলেই ম্যাচ পকেটে পুরত রাজস্থান৷ কিন্তু এক রানেই ক্ষান্ত হতে হয় গৌতমকে৷ ফলে জয় পেল দিল্লি।

ব্যর্থ হলো বাটলারের লড়াই৷ দিল্লির বিরুদ্ধে উত্তেজক ম্যাচে ৪ রানের সংক্ষিপ্ত ব্যবধানে হারতে হল রাজস্থান রয়্যালসকে৷ বৃষ্টি বিঘ্নিত ম্যাচে প্রথমে ব্যাট করে ১৭.১ ওভারে ৬ উইকেট হারিয়ে ১৯৬ রান তোলে দিল্লি৷ দ্বিতীয় দফার বৃষ্টিতে আরো কিছুটা সময় নষ্ট হওয়ায় ডাকওয়ার্থ-লুইস নিয়মে জয়ের জন্য ১২ ওভারে ১৫১ রানের লক্ষ্যমাত্রা দাঁড়ায় রাজস্থানের সামনে৷ শেষমেশ রাহানেদের থেমে যেতে হয় ৫ উইকেটে ১৪৬ রানে৷

কোটলার বাইশ গজ এই ম্যাচে যে রকম ব্যাটসম্যানদের আনুগত্য দেখায়, তাতে ওভার প্রতি সাড়ে বারো রান করে তোলা আসম্ভব না হলেও কঠিন ছিল নিশ্চিত৷ সেই কঠিন কাজটাই সহজ করে দিয়েছিলেন জোস বাটলার৷ ব্রিটিশ উইকেটকিপার-ব্যাটসম্যান রাজস্থানের হয়ে ওপেন করতে নেমে মাত্র ১৮ বলে হাফসেঞ্চুরি পূর্ণ করেন৷ শেষে ৪টি চার ও ৭টি ছক্কার সাহায্যে ২৬ বলে ৬৭ রান করে আউট হন তিনি৷

অপর প্রান্ত দিয়ে ডার্সি শর্ট শুরুটা ধীর গতিতে করলেও পরে ব্যাট চালিয়ে রান তোলার গতি বাড়ান৷ তিনি ২৫ বলে ৪৪ রান করে আউট হন৷ মারেন ২টি চার ও ৪টি ছয়৷ বড় রান করতে ব্যর্থ সঞ্জু স্যামসন (৩), বেন স্টোকস (১) ও রাহুল ত্রিপাঠী (৯)৷ কৃষ্ণাপ্পা গৌতম শেষবেলায় ৬ বলে ১৮ রান করে শেষ চেষ্টা করেছিলেন বটে, তবে সফল হতে পারেননি৷

মালিঙ্গাকে দেশে ফিরতে বলল এসএলসি

চলতি আইপিএলে মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের বোলিং পরামর্শকের দায়িত্ব ছেড়ে লাসিথ মালিঙ্গাকে দেশে ফিরে আসতে বললো শ্রীলংকা ক্রিকেট বোর্ড (এসএলসি)। আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারে ফিরতে চাইলে দ্রুতই মালিঙ্গাকে ঘরোয়া ক্রিকেটে খেলার পরামর্শ দিয়েছে এসএলসির সভাপতি থিলাঙ্গা সুমাথিপালা।

তিনি বলেন, ‘নির্বাচকরা তাকে দলে ফিরিয়ে আনতে চায়। এজন্য ঘরোয়া ক্রিকেটে তাকে খেলতে হবে। আমরা ঘরোয়া আসরে ৫০ ওভার ও টি-২০ ফরম্যাটে টুর্নামেন্ট খেলবো। দক্ষিণ আফ্রিকা সফর ও এশিয়া কাপের আগে মালিঙ্গার ৫০ ওভার ও টি-২০ ফরম্যাটে খেলা প্রয়োজন।’

আজ থেকে শুরু হওয়া শ্রীলংকার ঘরোয়া আসর আন্তঃপ্রদেশ ওয়ানডে টুর্নামেন্টের দলে জায়গা পেয়েছেন মালিঙ্গা। তবে সেখানে না খেলার ইঙ্গিত আগেই দিয়ে রেখেছিলেন মালিঙ্গা। আন্তঃপ্রদেশ ওয়ানডে টুর্নামেন্টের দল ঘোষণার আগে তিনি জানিয়েছিলেন, ‘আইপিএল শেষ না হওয়া পর্যন্ত অন্য কোন ঘরোয়া টুর্নামেন্টে খেলতে পারবো না। তবে আসন্ন দক্ষিণ আফ্রিকা সিরিজের জন্য প্রস্তুত।’

দেশের মাটিতে হয়ে যাওয়া নিদাহাস ট্রফিতে শ্রীলংকা দলে জায়গা হয়নি মালিঙ্গার। আইপিএলের আগে ঘরোয়া আসরে বেশক’টি ম্যাচ খেলেছেন তিনি। ৮টি টি-২০ ম্যাচে ১৭ উইকেট নেন মালিঙ্গা। এছাড়া ২০১৭ সালের সেপ্টেম্বর থেকে জাতীয় দলের বাইরে আছেন এই ডান-হাতি পেসার।

Leave a comment

Your email address will not be published.