কলকাতা টেস্টে থাকবে ৫০ হাজারের বেশি দর্শক

আইসিসির পূর্ণ সদস্যপদ পাওয়ার ১৯ বছরের মাথায় বাংলাদেশকে পূর্ণাঙ্গ সফরের আমন্ত্রণ জানায় প্রতিবেশী দেশ ভারতের। এত বছর ধরে বাংলাদেশকে আমন্ত্রণ না জানানোর পেছনে বিভিন্ন কারণ দেখিয়ে আসছিল। মাঠে দর্শক না আসার ঝুঁকি ও স্পন্সর না পাওয়ার ঝুঁকি।তবে সব বাধা পেরিয়ে ভারতের বিপক্ষে তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ ও দুটি টেস্ট ম্যাচ খেলতে ভারত সফর করছে বাংলাদেশ। টি-টোয়েন্টি সিরিজের প্রথম ম্যাচে স্বাগতিকদের হারিয়ে চমক দেখিয়েছে সফরকারীরা।এতে চাপ বেড়েছে গ্যালারিতে। দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টি ম্যাচে রাজকোটে একটা আসনও খালি ছিল না। এমনটাই তথ্য দিয়েছিল মাঠে থাকা জায়ান্ট স্ক্রিন।দিল্লিতে বাংলাদেশ জয় পেলেও রাজকোটে ভারত জিতে সিরিজ সমতায় নিয়ে আসায় নাগপুরে টিকিট যেন সোনার হরিণ।এরপর ১৪ নভেম্বর রয়েছে ইন্দোরে প্রথম টেস্ট। দ্বিতীয় টেস্ট কলকাতায় ২২ নভেম্বর।অথচ, কলকাতায় এখন থেকেই শুরু হয়ে গেছে টিকিটের হাহাকার। কেন না, প্রথমবারের মতো বাংলাদেশ-ভারত খেলতে যাচ্ছে দিবারাত্রির টেস্ট ম্যাচ।উত্তেজনাটা বাড়িয়ে দিয়েছে ম্যাচের উদ্বোধনে থাকবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপস্থিতি। থাকবেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জীও।

ইডেন গার্ডেনসের ঐতিহ্যবাহী ঘণ্টা বাজিয়ে এই টেস্টের উদ্বোধন করবেন শেখ হাসিনা ও মমতা ব্যানার্জী।

শেখ হাসিনা ও মমতা ব্যানার্জী ছাড়াও এদিন উপস্থিত থাকার কথা রয়েছে ভারতের কিংবদন্তি দাবাড়ু বিশ্বনাথ আনন্দ, টেনিস তারকা সানিয়া মির্জা, ব্যাডমিন্টনের বিশ্বচ্যাম্পিয়ন পি ভি সিন্ধু, ছয়বারের বিশ্বচ্যাম্পিয়ন মুষ্টিযোদ্ধা মেরি কম এবং ভারতের একমাত্র অলিম্পিক সোনাজয়ী অভিনব বিন্দ্রা।জানা গেছে শচীন টেন্ডুলকারকেও আনার চেষ্টা চালাচ্ছেন বিসিসিআইয়ের নয়া সভাপতি সৌরভ গাঙ্গুলী।ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন অব বেঙ্গল (সিএবি) জানাচ্ছে এই টেস্টের প্রথম তিন দিনে গ্যালারিই ভর্তি দর্শক থাকবে। ধারণা করা হচ্ছে, প্রতিদিনই দর্শকসংখ্যা হবে ৫০ হাজারের বেশি।

Leave a comment

Your email address will not be published.