কাভানি, নেইমার ও এমবাপ্পের নৈপূণ্যে ৩-০ গোলে জিতেছে পিএসজি।

আগামি ৬ই মার্চ চ্যাম্পিয়ন লিগের ফিরতি ম্যাচে রিয়াল মাদ্রিদের বিপক্ষে মাঠে নামার আগে নিজেদের ভালো ভাবেই ঝালিয়ে নিলো পিএসজি। লিগ ওয়ানে অন্যতম শক্তিশালী প্রতিপক্ষ মার্সেইকে উড়িয়ে দিয়ে শিরোপা পুনরুদ্ধারের পথে আর এক ধাপ এগিয়ে গেল নেইমারের পিএসজি। কিন্তু পিএসজির বড়  জন্য দু:সংবাদ হলো দলের সেরা খেলায়ার নেইমারের ইনজুরি।

ম্যাচের ৭৭তম মিনিটে প্রতিপক্ষের এক খেলোয়াড়ের কাছ থেকে বল কেড়ে নেওয়ার চেষ্টা করতে গিয়ে ব্যথা পান সময়ের অন্যতম সেরা ফুটবলার। আঘাত এতটাই গুরুতর ছিলো যে অবশেষে স্ট্রেচারে করে মাঠ ছাড়েন বিশ্বের সবচেয়ে দামি ফুটবলার।

রোববার রাতে ঘরের মাঠে কাভানি, নেইমার ও এমবাপ্পের নৈপূণ্যে ৩-০ গোলে জিতেছে উনাই এমেরির শীষ্যরা। গত অক্টোবরে মার্সেইয়ের মাঠ থেকে ২-২ ড্র করে ফিরেছিল উনাই এমেরির দল।

ম্যাচের দশম মিনিটে দানি আলভেসের এসিস্টে প্রথম সুযোগেই দলকে এগিয়ে দেন ফরাসি ফরোয়ার্ড কিলিয়ান এমবাপে।

২৭তম মিনিটে নিজেদের ভুলে দ্বিতীয় আত্মঘাতী গোল হজম করে মার্সেই। ছয় গজ বক্সে ডান দিকে কাভানির উদ্দেশে নেইমারের ক্রস ঠেকাতে গিয়ে জালে ঠেলে দেন পর্তুগিজ ডিফেন্ডার রোলান্দো।

২-০ ব্যবধানের এগিয়ে থেকেই বিরতিতে যায় নেইমাররা। দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই নেইমারের বাড়ানো বলে ডি বক্সে পেয়ে মার্সেইয়েল জালে বল  জড়াতে বেশি সময় নেয়নি উরুগুয়ের স্ট্রাইকারে এডিনসন কাভানি।

এবারের লিগে এই নিয়ে সর্বোচ্চ ২৪ গোল করলেন কাভানি। একই সঙ্গে নেইমারের ‘অ্যাসিস্ট’ বেড়ে হলো ১৩।ম্যাচের বাকি সময় কোন দলই আর গোলের দেখা পায়নি যার ফলে ৩-০ ব্যবধানের জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে পিএসজি।

৭৭তম মিনিটে ইনজুরি আক্রান্ত নেইমার মাঠ ছাড়লে ১০ জনের দলে পরিণত হয় পিএসজি। এর আগে তিন খেলোযার পরিবর্তনের কারনে উনাই এমরির সামনে নতুন কাউকে মাঠে নামানো সুযোগ থাকে না।

এই জয়ে ২৭ ম্যাচে ৭১ পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে রয়েছে নেইমারের পিএসজি। ৫৭ পয়েণ্ট নিয়ে দ্বিতীয় অবস্থানে আছে মোনাকো।

Leave a comment

Your email address will not be published.