কিউইদের পেস তোপে লুটিয়ে পড়লো বাংলাদেশ

নিউজিল্যান্ডের পেস তোপে টি ব্রেকের পরই লুটিয়ে পড়লো বাংলাদেশ। বিশেষ করে নেইল ওয়াগনার। পেসারদের এমন আগুন ঝরা বোলিংয়ের মুখে ক্যারিয়ারের নবম সেঞ্চুরি তুলে নিয়েছিলেন তামিম ইকবাল। তারপরও বাংলাদেশ গুড়িয়ে গেলো ২৩৪ রানে।

হ্যামিল্টন সবুজ ঘাসে মোড়ানো উইকেটে টস জিতে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয় কিউই অধিনায়ক। ওয়ানডেতে রান না পেলেও সকলের প্রত্যাশা ছিল তামিমের প্রতি। তার প্রতিদানও দিতে থাকেন তামিম। তার ঝড়ো ব্যাটে ২০ ওভারেই দলীয় ১০০ পূরণ হয় বাংলাদেশের। উদ্বোধনী জুটিতে সাদমানের সঙ্গে ৫৭ রান তোলেন তামিম।

পরে ট্রেন্ট বোল্টের বলে ২৪ রান করে ফিরে যান সাদমান ইসলাম। এরপর মুমিনুলকে সঙ্গে নিয়ে ৬৪ রানের জুটি গড়েন তামিম। যেখানে তামিমের সংগ্রহ ছিল ৫২ রান। এরপর ওয়াগনারের বলে উইকেটের পিছনে উইকেট দিয়ে ফেরেন ১২ রান করা মুমিনুল।

তৃতীয় উইকেটে মিঠুন নামলেও তেমন সুবিধা করতে পারেননি। দলীয় ১৪৭ রানে ওয়াগনারের বলে ল্যাথামের ক্যাচে পরিণত হন। এরপর চতুর্থ উইকেটে সৌম্য নামলেও আবারও ব্যর্থ তিনি। এক রান করে সাউদির শিকারে পরিণত হন।

এরপর দলীয় ৩৩তম ওভারের ৪র্থ বলে নেইল ওয়াগনারকে চার মেরে সেঞ্চুরি পূর্ণ করেন তামিম। এসময় তিনি ১৮টি চার মারেন। এটি তার টেস্ট ক্যারিয়ারের নবম সেঞ্চুরি।

শেষ পর্যন্ত তামিম ১২৬ রান করে দলীয় ১৮০ রানের সময় গ্র্যান্ডহোমের শিকার হন। তামিম এ রান করতে ১২৮ বল খরচ করেন। যেখানে চার ছিল ২১ আর ছয়ের মার ছিল একটি।

কিউইদের পেস তোপে লুটিয়ে পড়লো বাংলাদেশ

তামিমের বিদায়ের পর ওয়াগনার ও সাউদির পেসের সামনে আর দাঁড়াতে পারেনি বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানরা। ওয়াগনারের বলে ষষ্ঠ উইকেট হিসেবে নিজস্ব ২২ রানে ফেরত আসেন মাহমুদুল্লাহ। এরপর লিটনের সঙ্গে জুটি বাঁধেন মিরাজ। দলীয় ২১৭ রানের সময় আবারো ওয়াগনারের আঘাত। এবার ১০ রান করে ফিরে যান মিরাজ।

২৯ রান পরে এবার আঘাত হানেন আরেক পেসার টিম সাউদি। এবার শিকার আবু জায়েদ রাহী। দলীয় ২৩৪ রানে নবম উইকেট হিসেবে খালেদ বিদায় নেন। আর শেষ উইকেট হিসেবে লিটন দাসকে বোল্টের ক্যাচ বানিয়ে ম্যাচে পাঁচ নম্বর উইকেটটি তুলে নেন ওয়াগনার। টেস্ট ক্যারিয়ারে এটি ছিল ওয়াগনারের ষষ্ঠবারের মতো ৫ উইকেট।

নিউজিল্যান্ডের পক্ষে ওয়াগনার ৫টি, সাউদি ৩টি, বোল্ট ও গ্র্যান্ডহোম একটি করে উইকেট লাভ করেন।

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

source-rtv

Leave a comment

Your email address will not be published.