কোয়ার্টার ফাইনালে জুভেন্টাসকে ৩-০ গোলে হারাল রিয়াল

চ্যাম্পিয়নস লিগের কোয়ার্টার ফাইনালে জুভেন্টাসকে ৩-০ গোলে হারাল রিয়াল মাদ্রিদ৷ স্প্যানিশ চ্যাম্পিয়নদের হয়ে জোড়া গোল করেন রোনালদো।

ইউভেন্তুস স্টেডিয়ামে মঙ্গলবার (৩ এপ্রিল) রাতে শুরুতেই এগিয়ে যায় রিয়াল। প্রথম লেগের ম্যাচে তিনি মিনিটের মাথায় রোনালদোর গোলে এগিয়ে যায় রিয়াল। স্বাগতিকদের বাজে ডিফেন্ডিংয়ের সুবিধা কাজে লাগান অরক্ষিত রোনালদো। ইসকোর পাস থেকে প্রথম স্পর্শে বল জালে পাঠান পর্তুগিজ অধিনায়ক।

রক্ষণে ভরাডুবি ছাড়াও বারবার সুযোগ পেয়েও করতে ব্যর্থ থাকেন ইতালির ক্লাবটি৷ প্রথমার্ধে শুরুতেই রোনালদো গোলে রিয়াল এগিয়ে গেলেও ষষ্ঠ মিনিটে ম্যাচে সমতা পেরানোর দারুণ সুযোগ তৈরি হয় পাওলো দিবালার সামনে৷ গোলপোস্টের কাছে বল নিয়ে পৌঁছে গিয়েও শেষ মুহূর্তে দলকে কাঙ্ক্ষিত গোল এনে দিতে পারেননি আর্জেন্টিনার ফরোয়ার্ড৷

প্রথম খেলোয়াড় হিসেবে চ্যাম্পিয়নস লিগে টানা ১০ ম্যাচে গোল করার রেকর্ড গড়লেন পর্তুগিজ তারকা ফরোর্য়াড৷ তবে বুধবারের ম্যাচে তিনি শুধু গোল করলেনই না সঙ্গেই মার্সলোকে গোল করতে সাহায্যও করলেন৷ ঘরের মাঠে জুভেন্টাসের ভরাডুবির প্রধান কারণ রক্ষণে ব্যর্থতা। বেঞ্জেমাকে বেশি গার্ড করেতে গিয়ে রোনালদোকে যেন একটু খেলার সুযোগই করে দিলেন জুভেন্টাসের ফুটবলাররা।

পুরো মাঠ জুড়ে একপ্রকার অলৌকিক ফুটবল খেললেন রোনালদো। ৫০ মিনিটের মাথায় সিআর সেভেনের গোলপোস্ট লক্ষ্য করে নেওয়া শট একটুর জন্য মিস না হলে হ্যাট্রিক আটকানো সম্ভব ছিল না।

চার মিনিট পর দিবালাকে ফাউল করে হলুদ কার্ড দেখেন রামোস। সান্তিয়াগো বের্নাবেউয়ে দ্বিতীয় লেগে খেলা হবে না এই ডিফেন্ডারের।

এর কিছুক্ষণ পরেই ৬৩ মিনিটে একটি অসাধারন গোল করেন জিদানের প্রিয় শিষ্য৷ দানি কারভাজালের ক্রসকে অসাধারন খিপ্রতার সঙ্গে গোলে পরিবর্তন করেন রোনালদো। তার অতিমানবিক কিকে অভিভূত হতে দেখা যায় গুরু জিনেদিন জিদানকেও৷ সব ধরনের প্রতিযোগিতা মিলিয়ে এই মৌসুমে রিয়ালের হয়ে রোনালদোর এটি ৩৯ নম্বর গোল৷ ইউরোপের সেরা পাঁচ লিগের মধ্যে যা সর্বোচ্চ।

জুভেন্টাসকে ৩-০ গোলে হারাল রিয়াল

দুই মিনিট পর বিপদ আরও বাড়ে ইউভেন্তুসের। দ্বিতীয় হলুদ কার্ড দেখে মাঠ ছাড়েন দিবালা। দিশা হারিয়ে ফেলা স্বাগতিকদের জালে ৭২তম মিনিটে বল পাঠান মার্সেলো। তার গোলে দারুণ অবদান আছে রোনালদোর।

এরপর খেই হারিয়ে ফেলে জুভেন্টাস। ৯০ তম মিনিটে বুফন দেয়াল হয়ে না দাঁড়ালে হ্যাটট্রিকটা হয়েই যেত রোনালদোর। যোগ হওয়া সময়ের দ্বিতীয় মিনিটেও সুযোগ পান রোনালদো, এবারও মিস। এরপর যোগ হওয়া সময়ের শেষ মিনিটে শেষ সুযোগটা পায় জুভেন্টাস। কিন্তু ওই যে রাতটা যে তাদের ছিল না। ছিল রিয়ালের, ছিল রোনালদোর। নিজেদের মাঠে ০-৩ গোলের হার নিয়েই মাঠ ছাড়ে জুভেন্টাস।

গত মৌসুমের ফাইনালে দুই দলের লড়াইয়ে ৪-১ গোলে জিতেছিল রিয়াল। ঘরের মাঠে প্রথম লেগে তার প্রতিশোধ নেওয়া হল না ইউভেন্টাসের।

কোয়ার্টার ফাইনালে লেগের দু’নম্বর ম্যাচ খেলতে আগামী বুধবার মুখোমুখি হবে দল দু’টি৷

Leave a comment

Your email address will not be published.