জোড়া সেঞ্চুরিতে বিশাল সংগ্রহের পথে নিউজিল্যান্ড

বাংলাদেশের পক্ষে তামিমের একটি সেঞ্চুরির প্রতিদান যে দুটি সেঞ্চুরির মাধ্যমে দিতে হবে তা হয়তো কল্পনাই করতে পারেনি বাংলাদেশ। দুই সেঞ্চুরিয়ান জিত রাভাল ও টম ল্যাথামের ব্যাটে চড়ে বিশাল সংগ্রহের পথে নিউজিল্যান্ড। রাভাল তার ক্যারিয়ারের প্রথম সেঞ্চুরি আর ল্যাথাম ক্যারিয়ারের নবম সেঞ্চুরি তুলে নেন।

এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত নিউজিল্যান্ড ১০৮ রানের লিড নিয়েছে। তাদের দলীয় সংগ্রহ ২ উইকেটে ৩৪২রান। ক্রিজে রয়েছেন কেন উইলিয়ামসন ৪১ রানে ও রস টেলর ২ রানের।

আগের দিন ৮৬ রানে কোনও উইকেট না হারানো নিউজিল্যান্ড রাভাল ও ল্যাথামের জোড়া সেঞ্চুরিতে উদ্বোধনী জুটিতে রেকর্ড ২৫৪ রান করেন। যা বাংলাদেশের বিপক্ষে টেস্টের উদ্বোধনী জুটিতে এটি নিউজিল্যান্ডের সর্বোচ্চ। ২০০১ সালে ওয়েলিংটনে ম্যাট হর্ন ও মার্ক রিচার্ডসনের ১০৪ রানের জুটি ছিল আগের রেকর্ড।

আর সবমিলিয়ে রাভাল ও ল্যাথামের ২৫৪ নিউজিল্যান্ডের তৃতীয় সর্বোচ্চ উদ্বোধনী জুটি। সর্বোচ্চ টেরি জার্ভিস ও গ্লেন টার্নারের ৩৮৭, ১৯৭২ সালে জর্জটাউনে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে।

এ দুজনের জুটি ভাঙতে বাংলাদেশের অপেক্ষা করতে হয়েছে দ্বিতীয় সেশন পর্যন্ত। জুটি ভাঙতে এ সময় বল হাতে তুলে নেন মাহমুদুল্লাহ। অফ স্পিনারকে স্লগ সুইপ করতে গিয়ে বল আকাশে তোলেন রাভাল। মিড উইকেটে দৌড়ে গিয়ে ক্যাচ নেন খালেদ আহমেদ। ২২০ বলে ১৯ চার ও এক ছক্কায় ১৩২ রানের ইনিংসটি সাজান রাভাল।

এরপর উইলিয়ামসন ক্রিজে এসে ল্যাথামের সঙ্গে জুটি বাঁধেন। এ দুজন দ্বিতীয় উইকেটে ৭৯ রানের জুটি গড়েন। পরে সৌম্য সরকার এসে প্রথম স্লিপে মোহাম্মদ মিঠুনের ক্যাচ বানিয়ে ল্যাথামকে ফেরত পাঠান। ততক্ষণে ল্যাথাম ২৪৮ বলে ১৭ চার ও তিন ছক্কায় ১৬১ রানের করেন।

বাংলাদেশের হয়ে উইকেট দুটি সংগ্রহ করেন মাহমুদুল্লাহ ও সৌম্য সরকার।

এর আগে টসে হেরে বাংলাদেশ প্রথম ইনিংসে তামিম ইকবালের একমাত্র সেঞ্চুরিতে ২৩৪ রান সংগ্রহ করতে সক্ষম হয়।

কিউইদের হয়ে ওয়াগনার পাঁচ উইকেট দখল করেন।

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

source-rtv

Leave a comment

Your email address will not be published.