তেঁতুল বনে জোছনা-পর্ব-(১৩) হুমায়ূন আহমেদ

 আমি কী বলতেছি কী বলতেছি কিছুই বুঝতেছি নাতেঁতুল বনে জোছনা 

জহির খা শান্ত গলায় বললেন, ঠিক আছে আপনারে বুঝাইবার ব্যবস্থা করতেছিসবেই চট কইরা বুঝে নাকেউ তাড়াতাড়ি বুঝে আবার কেউ আছে বুইঝাও বুঝে না। 

ইমাম সাহেব মাথার পাগড়ি খুলে হাতে নিয়েছেনগরমে তার মাথার সব চুল ভিজে গেছেচুল থেকে ঘামের ফোটা কপাল বেয়ে নামছেতার ঠোট নড়ছেমনে হচ্ছে তিনি দ্রুত কোনাে সূরা পাঠ করছেন। 

রাত আটটার মতাে বাজেআনিস বিছানায় শুয়ে আছেবিকেল থেকেই তার গা ম্যাজ ম্যাজ করছিল, এখন শরীর কাঁপিয়ে জ্বর এসেছেডাক্তাররা নিজেদের অসুখ বিসুখের ব্যাপারে উদাসীন হয়আনিস তার ব্যতিক্রম নাথার্মোমিটারে সে জ্বর দেখে নিদুটা এনালজেসিক ট্যাবলেট খেয়ে জ্বর কমানাের চেষ্টাও কারে নিহাত পা এলিয়ে বিছানায় শুয়ে আছেতার সামান্য দুঃশ্চিন্তা হচ্ছে রাতের খাবার নিয়েতার রান্না বান্না করে দেয় সুজাত মিয়াবয়স দশ 

এগারােতার পায়ে সমস্যা আছেএকটা পা বড়, একটা ছােটহাঁটে খুঁড়িয়ে খুঁড়িয়েপরশু সকাল থেকে সুজাত নিখোজকোথায় গেছে কাউকে কিছু বলে যায় নিছেলেটি অতি ভদ্র, অতি বিনয়ী, কাজ কর্মে দক্ষতার একটাই সমস্যা মাঝে মাঝে কাউকে কিছু না বলে নিখোঁজ হয়ে যায়আবার ফিরে এসে কাজকর্ম শুরু করে দেয়ভাবটা রকম যেন কিছুই হয় নিসে কোথাও যায় নিএখানেই ছিল। 

আনিসের ঘরে হারিকেন জ্বলছেবিরাটনগরে পল্লী বিদ্যুৎ এসেছেডাক্তারের কোয়ার্টারে পল্লী বিদ্যুতের লাইন আছেইলেকট্রিকের তারে কী সমস্যা হয়েছেবাতি জ্বলছে নাতার ঠিক করার জন্যে ইলেকট্রিশিয়ান আনার জন্যে খবর পাঠাতে হবে নেত্রকোনায় আলসেমির জন্যে খবর পাঠানাে হচ্ছে 

 আনিস রােজ রাতে ভাবে কালই লােক পাঠাবেসকালে মনে থাকে নাকাল অবশ্যই লােক পাঠাতে হবেনবনী চিঠি লিখেছে সে আসবেনবনী শীতের দিনেও এসি ছাড়া ঘুমুতে পারে নাফ্যান তাে লাগবেইআশ্বিন মাসে দিনে রােদের তাপ বেশিরাতটা অবশ্যি ঠাণ্ডাতারপরেও ফ্যান লাগবে। নবনীর এবারের চিঠিটা নিয়েও আনিস সামান্য চিন্তিতচিঠির কথা কেমন যেন এলােমেলাে! তার কি কোনাে সমস্যা যাচ্ছে? সমস্যার ব্যাপারটা লেখা নেইলেখা থাকলে ভালাে হতাে আনিস চিন্তা করতে পারতপ্রায় রাতেই তার কোনাে কাজ থাকে নাতখন কোনাে কিছু নিয়ে ভাবতে ভালাে লাগে। 

আনিস বালিশের নিচ থেকে নবনীর চিঠি বের করল। এই চিঠি এর মধ্যেই কয়েকবার পড়া হয়েছেআরাে একবার পড়লে ক্ষতি কিছু নেই। 

ডাক্তার সাহেব

কেমন আছ তুমি ? জঙ্গলে দিনকাল কেমন কাটছে ? অসহ্য বােধ হওয়া শুরু হয় নি ? আমি যখন ছােটবেলায় গ্রামের বাড়িতে বাবার সঙ্গে বেড়াতে যেতাম প্রথম দিন খুব ভালাে লাগতদ্বিতীয় দিনে ভালাে লাগাটা কমে যেততৃতীয় দিন থেকে অসহ্য লাগা শুরু হতােতুমি কীভাবে বৎসর পার করে দিচ্ছ ভাবতে অবাক লাগছে। 

আমি ভেবে দেখলাম—তুমি তেল আমি জলতােমার পছন্দ এক রকমআমার অন্য রকমবিবাহ নামক ঝাকুনি যন্ত্রের মাধ্যমে তেল জল মিশে যাচ্ছেআবার ঝাঁকুনি বন্ধ হলেই তেল আলাদা, জল আলাদাআমাদের সার্বক্ষণিক 

সুখে থাকার জন্যে প্রবল ঝাঁকুনি যন্ত্র দরকার। সে রকম যন্ত্র আবিষ্কৃত হয় নি বলে আমি ভয়ঙ্কর দুশ্চিন্তায় আছি। 

তােমার এখানে তিন দিনের জন্যে আসবপ্রথম দিন আমার খুবই ভালাে লাগবেদ্বিতীয় দিন ভালাে লাগাটা একটু কমবেতৃতীয় দিনে অসহ্য বােধ হতে থাকলে তখন চলে আসব। কিছু মানুষ আছে অসহনীয় অবস্থা সহনীয় করার জন্যে চেষ্টা চালায়আমার এবং তােমার, আমাদের দুজনেরই দুর্ভাগ্য আমি সে রকম নাআমি কেন রকম হয়েছি সেটা নিয়ে ভেবেছিউত্তর পাই নি। 

তােমাকে জানানাে হয় নি ইদানিং আমি একজন সাইকিয়াট্রিস্টের কাছে যাওয়াআসা করছিভদ্রলােক আমাদের আত্মীয় এবং আমাকে ছােটবেলা থেকেই খুব স্নেহ করেনসাইকিয়াট্রিস্টের কাছে যাবার উদ্দেশ্য হলাে তিনি যেন রাতে ভয়ঙ্কর সব দুঃস্বপ্ন দেখার হাত থেকে আমাকে বাচানএকবারতাে আমি তােমাকে লিখেছিলাম যে আমি দুঃস্বপ্ন দেখিসেই দুঃস্বপ্নগুলাে কত ভয়ঙ্কর তা লেখা হয় নিরাতে দেখা ভয়ের স্বপ্নগুলাে যখন দিনে মনে করি বা কাউকে বলতে যাই তখন খুবই হাস্যকর মনে হয়গত বৃহস্পতিবার রাতে কী স্বপ্নে দেখেছি শােনদেখলাম আমি পুরনাে ধরনের রেলিং দেয়া খাটে শুয়ে আছি

খাটেরচারদিকে রেলিং ধরে আট জন বােরকাপরা মহিলা দাড়িয়ে আছেনএবং সবাই হাত বাড়িয়ে আমাকে ছুঁয়ে ছুঁয়ে দেখছেনআমি নিশ্চিত যে তােমার কাছে স্বপ্নটা মােটেই ভয়ঙ্কর মনে হচ্ছে নাএখন আমার কাছেও মনে হচ্ছে নাকিন্তু স্বপ্নটা দেখার সময় কী যে ভয় পেয়েছিলাম! আমি সাইকিয়াট্রিস্ট চাচার পরামর্শ মতাে একটা খাতা বানিয়েছিসেই খাতার নাম দিয়েছি স্বপ্নখাতা আমি এই খাতায় স্বপ্নগুলাে লিখে রাখছিতােমার এখানে আসার সময়খাতাটা নিয়ে আসবতুমি পড়ে দেখআমি নিশ্চিত তুমি মজা পাবে। 

সাইকিয়াট্রিস্ট চাচা আমাকে পরীক্ষানিরীক্ষা করে কী সিদ্ধান্তে এসেছেন শুনতে চাও ? তার সিদ্ধান্ত হলাে আমি 

নাকি মানসিকভাবে বিয়েটা মেনে নিতে পারছি নাতােমার সঙ্গে বিয়ে আমার মনের ওপর প্রবল চাপ ফেলেছেএই মানসিক চাপই স্বপ্ন হিসেবে দেখা দিচ্ছে। এটা সাইকিয়াট্রিস্টের সিদ্ধান্ত। তােমার সিদ্ধান্ত কী ? ভালাে থেকো । 

নবনী 

আনিসের শরীর কেমন যেন ঝিমঝিম করছেজ্বর কি বেড়েছে ? ঘরে থার্মোমিটার নেইক্ষিধে লেগেছে, কিন্তু খেতে ইচ্ছা করছে নাদুটা বিপরীতমুখী ব্যাপার একসঙ্গে কী করে ঘটে ? শরীর যন্ত্র নষ্ট হলে এরকম হয়জলাতংকের রােগীর তৃষ্ণায় বুক ফাটে কিন্তু পানি খেতে পারে না। না উদাহরণটা ঠিক হলাে না জলাতংকের রােগীর তৃষ্ণা হয়, পানিও খেতে চায় খিচুনির জন্যে খেতে পারে না। 

মন যন্ত্র নষ্ট হলেও বিপরীতমুখী ব্যাপারগুলাে দেখা যায়পাশাপাশি দুটি নদীএকটি অন্যটির গায়ের ওপর দিয়ে বইছেএকটির পানি যাচ্ছে সাগরের দিকেঅন্যটির পানি সাগর থেকে উঠে রওনা হয়েছে পর্বতমালার দিকে। 

নবনীর মনে কি এরকম দুটি ধারা বইছে? সে দুঃস্বপ্ন দেখতে শুরু করেছে কেন? আনিস কি তার জীবনে বড় ধরনের কোনাে আশাভঙ্গের ব্যাপার ঘটিয়েছে

নবনীর ব্যাপারে আনিসের মনে আশাভঙ্গের কিছু ঘটে নিসে জানে নবনী চমৎকার একটি মেয়ে। তার একটাই সমস্যা সে ভয়াবহ নিঃসঙ্গআনিস সেই নিঃসঙ্গতা দূর করতে পারে নিবিরাটনগর ছেড়ে সে যদি ঢাকায় গিয়ে নবনীর সঙ্গে বাস করতেও থাকে তাতেও নবনীর নিঃসঙ্গতা দূর হবে নাকিছু কিছু মানুষ বিচিত্র ধরনের নিঃসঙ্গতা নিয়ে পৃথিবীতে আসেকারাের সাধ্য নেই সেই নিঃসঙ্গতা দূর করে। সেই সব মানুষরা তাদের নিঃসঙ্গতা দূর করার চেষ্টা নিজেরাই করেতা করতে গিয়ে কেউ বড় লেখক হয়, কেউ হয় চিত্রকর, বিজ্ঞানী।

Leave a comment

Your email address will not be published.