তেঁতুল বনে জোছনা-পর্ব-(৭) হুমায়ূন আহমেদ

এমিতে নবনীর হাতের লেখা জড়ানাে কিন্তু আধাে ঘুম আধাে তন্দ্রার সময়ের হাতের লেখা বেশ পরিষ্কারনবনী লিখেছে— 

স্বপ্নে দেখলাম পানির ওপর দিয়ে দৌড়ে যাচ্ছিপানি বরফ শীতলযতই সামনের দিকে এগুচ্ছি ততই পানি বাড়ছেমনে হচ্ছে আমি গভীর পানির দিকে যাচ্ছিদৌড়ানাে বন্ধ করে কিছুক্ষণ দাঁড়ালামযে দিকে দৌড়াচ্ছিলাম তার উল্টোদিকে দৌড়াতে শুরু করলাম সেদিকেও পানি বাড়ছে। আমি ক্রমাগত গভীর পানির দিকে যাচ্ছিআবারাে দাঁড়িয়ে পড়লামতেঁতুল বনে জোছনা

আমার চারদিকে হিম শীতল পানিদিগন্তরেখা বলে কিছু নেইআমি দাঁড়িয়ে আছি এক দিকচিহ্নহীন সমুদ্রের মাঝখানেআমি যেখানে দাঁড়িয়ে আছি সেখানটা গভীর নাপানি আমার কোমর পর্যন্তকিন্তু যে দিকে যাওয়া যায়গভীরতা বাড়েহঠাৎ শোঁ শোঁ শব্দ হওয়া শুরু হলােআমার চারদিক থেকে উঁচু হয়ে পানি আসছেযেকোনাে মুহূর্তে আমাকে ডুবিয়ে 

দেবেঘুম ভেঙ্গে গেলনবনী ছােট্ট করে নিঃশ্বাস ফেললস্বপ্নটা রাতে যত ভয়ঙ্কর মনে হচ্ছিল আসলে তত ভয়ঙ্কর নাএই স্বপ্ন দেখার পেছনে কারণ আছেসে স্বপ্নে দেখেছে হিম শীতল পানিএর কারণ ঘর এসির জন্যে খুব ঠাণ্ডা হয়ে গিয়েছিলসে শীতে কাঁপছিলএক্সটার্নেল স্টিমুলাই স্বপ্ন তৈরি করেছেচারদিক থেকে পানি এসে তাকে গ্রাস করছেএর পেছনেও কারণ আছেঘুমুতে যাবার আগে সে ন্যাশনাল জিওগ্রাফির চ্যানেল দেখছিল

দক্ষিণমেরু নিয়ে প্রােগ্রামদক্ষিণমেরুতে পানি পাওয়া গেছেবিজ্ঞানীরা এই নিয়ে মহা চিন্তিতদক্ষিণমেরুতে পানি পাওয়ার কথা নাতাহলে কি বরফ গলতে শুরু করেছে ? দি দক্ষিণ মেরুর বরফ গলে যায় তাহলে পুরাে পৃথিবী চব্বিশ ফুট পানির নিচে তলিয়ে যাবেরকম ভয়ঙ্কর প্রতিবেদন দেখে ঘুমুতে গেলে রাতে পানিতে ডুবে যাবার স্বপ্ন দেখাইতাে স্বাভাবিক। 

স্বপ্নের খাতায় কিছু ফুটনােট লিখে রাখা কি দরকার ? স্বপ্ন প্রসঙ্গে তার 

  • জের ব্যাখ্যাও থাকলএই ব্যাখ্যা সাইকিয়াট্রিস্ট সাহেবের কাজে লাগলেও ফাগতে পারেযে সাইকিয়াট্রিস্ট নবনীকে দেখছেন তার নাম , কে, হােসেইনআইনস্টাইনের চেহারার সঙ্গে ভদ্রলােকের চেহারার খুব মিল আছেমাথাভর্তি 

ধবধবে সাদা চুলআইনস্টাইনের গোঁফ ছিল, ভদ্রলােকের গোঁফ নেইসাইকিয়াট্রিস্টরা উল্টাপাল্টা প্রশ্ন করেন এই রকম কথা শােনা যায়এই 

দ্রলােকের বেলায় সে রকম মনে হয় নাভদ্রলােকের প্রশ্নগুলাে সুন্দর তবে প্রশ্নের ধরন দেখে বুঝা যায় দ্রলােক কিছু না জেনেই নবনীর দুঃস্বপ্নের একটা ব্যাখ্যা দাঁড় করিয়েছেনপ্রশ্নগুলাে করা হচ্ছে সেদিক থেকেনবনীর ধারণা প্রফেসর . কে. হােসাইন মােটামুটি নিশ্চিত, যে ডাক্তার ছেলের সঙ্গে নবনীর বিয়ে হয়েছে তার সঙ্গে বনিবানা হচ্ছে না

নবনী দুঃস্বপ্নগুলাে এই কারণে দেখছেসাইকিয়াট্রিস্ট ভদ্রলােক প্রশ্ন করার সময় চোখ বন্ধ করে প্রশ্ন করেনএটা নবনীর কাছে খুব অস্বস্তিকর মনে হয়কয়েকবার সে ভেবেছে সেও জবাব দেবার সময় চোখ বন্ধ করে রাখবেদুজন কথা বলছে, দুজনেরই চোখ বন্ধ মজার ব্যাপার। 

আচ্ছা মা নবনী, দুঃস্বপ্নগুলাে কি তুমি বিয়ের আগেও দেখতে ? মাঝে মাঝে দেখতামবিয়ের পর বেশি দেখছ তাই না

প্রায় রােজ রাতেই দেখছ

তােমার ডাক্তার হাসবেন্ড আনিসও তাে শুনেছি গ্রামের দিকে কোথায় কাজ করছে। 

ঠিকই শুনেছেন চাচা। 

তুমি ওর সঙ্গে থাকছ না? কীভাবে থাকব ইউনিভার্সিটি তাে খােলাওর কাছে যাও না? একবার গিয়েছি, গত মাসের এগারাে তারিখ তিন দিন ছিলামতখনাে কি দুঃস্বপ্ন দেখেছ

কী দেখেছ মনে আছে

একটা শুধু মনে আছেবাড়িতে আগুন লেগে গেছেআমরা বের হতে পারছি না, কারণ দরজা খুঁজে পাচ্ছি না। 

কাঠের বাড়ি, না দালান

মনে নেইআগুনের সঙ্গে প্রচুর ধোয়া ছিল না কি শুধুই আগুন ? তাও মনে নেই। 

সেই স্বপ্নে তুমি একা ছিলে, নাকি তােমার সঙ্গে তােমার হাসবেন্ডও ছিল

মনে নেই চাচাআমার স্বপ্ন মনে থাকে নারাতে যা দেখি সকালবেলা ভুলে যাই। 

তাহলে এই স্বপ্নটা মনে আছে কীভাবে ? কিছু কিছু স্বপ্ন মনে থাকেতােমার শ্বশুরবাড়ি তাে ঢাকাতেই, তাই না

শ্বশুরবাড়ি ঢাকায় না, তবে আমার শ্বশুর শাশুড়ি ঢাকায় থাকেনকলাবাগানের একটা ফ্ল্যাটে। 

তুমি তাদের সঙ্গে থাক না ? জি নামাঝে মাঝে দেখা করতে যাই কিন্তু থাকি নাথাক না কেন ? | নিজের ঘর ছাড়া আমার ঘুম হয় নাতাছাড়া ওদের বাড়িতে এসি নেই । আমার খুব একটা খারাপ অভ্যাস হয়েছেরাতে ঘুমুতে যাবার সময় সি লাগেশীতের সময়ও আমি এসি ছেড়ে রাখিডাবল লেপ গায়ে দিয়ে ঘুমাই। 

শ্বশুর শাশুড়ি তােমার কেমন লাগে ? মােটামুটি লাগেখারাপও না, আবার ভালােও নাএই দুজনের মধ্যে কাকে তােমার বেশি অপছন্দ ? আমার শ্বশুরকে উনি বেশি কথা বলেনউনি কাউকে কথা বলতে দেবেন নিজে কথা বলবেনঅন্য কেউ কথা বললে তিনি কেমন জানি বিরক্ত হনভ্রু কুঁচকে তাকান। 

কী নিয়ে কথা বলেন ? | বেশির ভাগ সময় হােমিওপ্যাথি নিয়েরিটায়ার করার পর হােমিওপ্যাথির বই পড়ছেন তােহােমিওপ্যাথি মাথার ভেতর ঢুকে গেছে। 

চিকিৎসা করছেন

নিজের আত্মীয় স্বজনদের মধ্যে করছেনআমি যে বার তার কাছে গিয়েছি তিনি জোর করে ওষুধ খাইয়ে দিয়েছেন। 

কী ওষুধ

ইপিকাকআপনি যদি কিছুক্ষণ তার সামনে থাকেন তাহলে আপনাকেও হয়তাে কোনাে ওষুধ খাইয়ে দেবেন। 

তুমি যে সব দুঃস্বপ্ন দেখ তার মধ্যে তােমার শ্বশুরকে কখনাে দেখেছ ? মনে নেই চাচা। 

মা শােন, মাথার কাছে সব সময় একটা খাতা রাখবে আর কলম রাখবেখাতাটা হলাে স্বপ্নখাতাস্বপ্ন দেখে যদি ঘুম ভেঙ্গে যায় সঙ্গে সঙ্গে খুব গুছিয়ে স্বপ্নটা লিখে ফেলবে। অবশ্যই তারিখ দেখেসময় লিখে রাখবেআপাতত ঘুমের ওষুধ দিচ্ছি ডরমিকামসাইড এফেক্ট নেই বললেই হয়বিছানায় যাবার আধঘণ্টা আগে একটা ডরমিকাম খাবে। 

চাচা আমারতাে ঘুমের কোনাে সমস্যা নেই, বিছানায় যাওয়া মাত্র আমার ঘুম পায়ঘুমের ওষুধ খাব কেন ? 

ঘুমের ওষুধটা খাবে যাতে সাউন্ড স্লীপ হয়ঘুম গাঢ় হলে দুঃস্বপ্ন দেখবে না। 

দুঃস্বপ্ন না দেখলে স্বপ্নের খাতায় দুঃস্বপ্নগুলাে লিখব কীভাবে ? আমার সমস্যাটা কী তা বুঝার জন্যেই তাে স্বপ্নগুলাের বিষয়ে আপনার জানা দরকার। 

নবনীর কথায় প্রফেসার . কে. হােসাইন এমনভাবে বিরক্তিতে চোখ মুখ কুঁচকালেন যে নবনীর হাসি পেয়ে গেল। সে হাসি চাপা দিয়ে গম্ভীর গলায় বলল, চাচা আপনি ভুরু টুরু কুঁচকে ফেলেছেন কেন? আপনি কি আমার কথায় বিরক্ত হয়েছেন

সামান্য হয়েছিকেউ যখন তুচ্ছ কথা নিয়ে পেঁচায় আমার ভালাে লাগে । তােমার মধ্যে এই অভ্যাসটা আছে। 

নবনী আগের চেয়েও গম্ভীর গলায় বলল, চাচা আপনার মেজাজ খিটখিটেতাে, এই জনেই আমার কথা পেঁচানাে মনে হচ্ছেআমি মােটেও পেঁচানাে কথা বলছি না। আপনার নাক্সভূমিকা খাওয়া উচিতখিটখিটে মেজাজের মানুষদের প্রধান ওষুধ হলো নাক্সভূমিকাদুইশ পাওয়ারের নাক্সভূমিকা সকালে চারটা আর রাতে চারটা করে খাবেন। এই ওষুধ আমি শিখেছি আমার শ্বশুরের কাছ থেকে আপনি বললে আমি আমার শ্বশুরের কাছ 

থেকে ওষুধ এনে দেব। 

ভদ্রলােক কিছু বললেন না। স্থির চোখে নবনীর দিকে তাকিয়ে রইলেন। 

সেদিন তাঁর দৃষ্টি দেখে নবনীর মনে হয়েছিল নবনীর মতাে রােগী তিনি খুব বেশি দেখেন নিদেখার ব্যাপারে তার উৎসাহও নেই। 

ভারী গম্ভীর গলায় কে যেন ডাকল, নবনী

Leave a comment

Your email address will not be published.