দিনেশ চান্দিমালকে নিষিদ্ধ করেছে আইসিসি।

নিদাহাস ট্রফির তৃতীয় ম্যাচে শ্রীলঙ্কা ও বাংলাদেশ দুই দলই নির্ধারিত সময়ে ২০ ওভার শেষ করতে পারেনি। তাই স্লো ওভার রেটে বড় শাস্তি পেয়েছেন স্বাগতিক অধিনায়ক দিনেশ চান্দিমাল। অন্যদিকে, বাংলাদেশের অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহকে গুনতে হচ্ছে কেবল জরিমানা।

শনিবার বাংলাদেশকে ২১৫ রানের টার্গেট দিয়েও ৫ উইকেটে হেরে যায় শ্রীলঙ্কা। অনেক সময় নিয়ে শেষ কয়েক ওভারে চান্দিমালের বোলিং পরিকল্পনা ভেস্তে দেন মুশফিকুর রহিম। বাংলাদেশের কাছে এমন হারের ধাক্কা সামাল দেয়ার আগেই বড় ধরনের দুঃসংবাদ পেল শ্রীলঙ্কা। গুরুতর স্লো ওভার রেটের অপরাধে পরবর্তী দুই ম্যাচে জন্য দিনেশ চান্দিমালকে নিষিদ্ধ করেছে আইসিসি।

গুরুতর স্লো ওভার রেটে পাওয়া দুটি সাসপেনশন পয়েন্ট অনুযায়ী একটি টেস্ট বা দুটি ওয়ানডে বা দুটি টি-টোয়েন্টিতে নিষিদ্ধ হন খেলোয়াড়রা। অভিযুক্ত খেলোয়াড়দের সামনে যে ফরম্যাটের খেলা থাকবে সেটা অনুযায়ী নিষিদ্ধ হবেন।

তাই লঙ্কানরা যদি ফাইনাল পর্যন্ত যেতে পারেন তাহলে ফাইনাল ম্যাচে খেলতে পারবেন চান্দিমাল। তবে আপিল করার সুযোগ পাচ্ছেন লঙ্কান দলপতি।

চান্দিমালের এই স্লো ওভার রেটের শাস্তি এড়াতে পারছে না দলের খেলোয়াড়রাও। প্রত্যেককে ম্যাচ ফির ৬০ শতাংশ জরিমানা দিতে হবে। আগামী ১২ মাসে যদি চান্দিমালের নেতৃত্বে একটি টি-টোয়েন্টিতে আবারও গুরুতর স্লো ওভার রেট করে শ্রীলঙ্কা, তাহলে দুই থেকে আটটি সাসপেনশন পয়েন্ট পাবেন এ উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান।

এদিকে রেকর্ড জয়ের দিনে মাহমুদউল্লাহও শাস্তি এড়াতে পারেননি। এক ওভারের জন্য স্লো ওভার রেটে তাকে জরিমানা গুনতে হচ্ছে ম্যাচ ফির ২০ শতাংশ, আর দলের বাকিরা দেবেন ১০ শতাংশ করে। আগামী ১২ মাসের মধ্যে আবারও যদি এই অলরাউন্ডারের নেতৃত্বে স্লো ওভার রেট করে বাংলাদেশ, তাহলে নিষিদ্ধ হতে পারেন তিনি।

নিদাহাস ট্রফির লিগ পর্বে বাংলাদেশ এখনও দুইটি ম্যাচ খেলার সুযোগ পাবে। আগামী ১৪ মার্চ ভারতের বিপক্ষে ও ১৬ মার্চ শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে মাঠে নামবে টাইগাররা। সিরিজে বর্তমানে বাংলাদেশ, শ্রীলঙ্কা, ভারত তিন দলই একটি করে ম্যাচ জিতেছে এবং একটি করে হেরেছে। তবে লঙ্কানদের বিপক্ষে বড় স্কোর তাড়া করায় এগিয়ে রয়েছে টাইগাররা।

Leave a comment

Your email address will not be published.