দুরন্ত জয় তলে নিল সানরাইজার্স হায়দরাবাদ।

বোলাররা জেতালেন হায়দরাবাদকে

স্বল্প রানের পুঁজি নিয়েও আরো একটা দুরন্ত জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ল সানরাইজার্স হায়দরাবাদ। আইপিলে রবিবার রাজস্থান রয়্যালসের বিরুদ্ধে ১১ রানে জিতল তারা। অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসনের হাফ-সেঞ্চুরিতে ভর করে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৭ উইকেটে ১৫১ রান তুলেছিল হায়দরাবাদ। জবাবে ৬ উইকেটে ১৪০ রানে আটকে যায় রাজস্থান রয়্যালস। এই জয়ের সুবাদে পয়েন্ট টেবলের শীর্ষে উঠে এল সানরাইজার্স হায়দরাবাদ। ৮ ম্যাচ খেলে ৬টিতে জিতেছেন ধাওয়ান-উইলিয়ামসনরা।

একাদশ আইপিএল শুরুর আগেই বিশেষজ্ঞরা মন্তব্য করেছিলেন, এবার সানরাইজার্স হায়দরাবাদের বোলিং বিভাগ সবার সেরা। এই নিয়ে পরপর তিন ম্যাচে সেই ভবিষ্যদ্বাণী অক্ষরে অক্ষরে মিলিয়ে দিলেন সিদ্ধার্থ কল, রশিদ খান, সন্দীপ শর্মারা। গত মঙ্গলবার মুম্বই ইন্ডিয়ান্সের বিপক্ষে ১১৮ রানের পুঁজি নিয়েও জিতেছিল সানরাইজার্স ব্রিগেড। পরের ম্যাচে কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবের বিপক্ষে ১৩২ রান করেও জয় পেয়েছিল তারা। রোববারও সেই একই চিত্র ফুটে উঠল জয়পুরের মাঠে। রাজস্থান রয়্যালসের বিপক্ষে সানরাইজার্সের ব্যাটিং বিভাগ সেভাবে জ্বলে উঠতে না পারলেও পুষিয়ে দিয়েছেন বোলাররা। টসে জিতে প্রথমে ব্যাটিং করতে নেমে শুরুতেই শিখর ধাওয়ানের (৬) উইকেট খুইয়ে চাপে পড়ে গিয়েছিল হায়দরাবাদ। তবে দ্বিতীয় উইকেটে ৯২ রান যোগ করে বড় রানের আশা জাগান কেন উইলিয়ামসন (৪৩ বলে ৬৩) ও অ্যালেক্স হেলস (৩৯ বলে ৪৫)। কিন্তু এই জুটি ভাঙতেই পর পর আরো কয়েকটি উইকেট হারিয়ে ফের চাপে পড়ে যায় তারা। রাজস্থানের হয়ে জোফরা ৩টি ও কৃষ্ণাপ্পা গৌতম ২টি উইকেট নেন।

জবাবে হায়দরাবাদ বোলারদের আঁটোসাটো বোলিংয়ের সামনে শুরু থেকেই ধুঁকতে থাকে রাজস্থান রয়্যালস। ওপেন করতে নেমে অপরাজিত থেকেও টিমকে জয়ের মুখ দেখাতে পারেননি অধিনায়ক অজিঙ্কা রাহানে। তবে দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৬৫ রানের ইনিংস খেলেছেন তিনি। এছাড়া সঞ্জু স্যামসন করেন ৪০ রান। হায়দরাবাদ বোলারদের মধ্যে সিদ্ধার্থ কল ২টি উইকেট নিয়েছেন। এছাড়া রশিদ খান, ইউসুফ পাঠান ও সন্দীপ শর্মা একটি করে উইকেট পান।

Leave a comment

Your email address will not be published.