বাংলাদেশ টেস্টে আম্পায়ার থাকছেন যারা

বাংলাদেশ

বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপের অংশ হিসেবে পাকিস্তানের বিপক্ষে দুই ম্যাচ টেস্ট সিরিজ খেলবে বাংলাদেশ। দ্বিতীয় ধাপে প্রথমটি খেলতে বুধবার সকালে দেশটির রাজধানী ইসলামাবাদে পৌঁছেছেন টাইগাররা। মাঝে একদিন বিরতি দিয়ে শুক্রবারই রাওয়ালপিন্ডি ক্রিকেট স্টেডিয়ামে ম্যাচটি খেলতে নামবেন তারা।

এ টেস্টের জন্য আম্পায়ার ও অফিসিয়ালদের নাম ঘোষণা করেছে আইসিসি। নাইজেল লং (ইংল্যান্ড), ক্রিস গ্যাফানি (নিউজিল্যান্ড) ও মারাইস এরাসমাসকে ম্যাচটি পরিচালনার দায়িত্ব দিয়েছে আইসিসি। আর ম্যাচ রেফারি হিসেবে স্যার রিচি রিচার্ডসনের (ওয়েস্ট ইন্ডিজ) কাঁধে ভার অর্পণ করেছে বিশ্ব ক্রিকেটের নীতিনির্ধারণী সংস্থা।

অনফিল্ড আম্পায়ার হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন নাইজেল ও গ্যাফানি। থার্ড আম্পায়ার হিসেবে থাকবেন এরাসমাস। এ ছাড়া পাকিস্তানের শোজাইব রাজাকে রাখা হয়েছে রিজার্ভ আম্পায়ার হিসেবে।

সবশেষ ২০১৭ সালের সেপ্টেম্বরে পাকিস্তানে যান রিচার্ডসন। সেবার স্বাগতিকদের বিপক্ষে আইসিসি বিশ্ব একাদশের তিন ম্যাচ টি-টোয়েন্টি সিরিজে রেফারি ছিলেন তিনি। এ ছাড়া খেলোয়াড়ি জীবনে ১৯৮৫ থেকে ১৯৯৬ সালের মধ্যে ছয়বার দেশটি সফর করেন ক্যারিবীয় ক্রিকেটার।

তবে প্রথমবার পাকিস্তানে যাচ্ছেন গ্যাফানি ও এরাসমাস। আর সেখানে ৬টি ওয়ানডে পরিচালনা করেছেন নাইজেল। সবশেষ ২০০৯ সালের জানুয়ারিতে জঙ্গি আক্রান্ত দেশটিতে যান তিনি।

এর আগে প্রথম দফায় গেল মাসের শেষ দিকে তিন ম্যাচ টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলতে পাকিস্তানে যায় বাংলাদেশ। সেবার মাঠের অনফিল্ড, থার্ড ও রিজার্ভ আম্পায়ার- সবাই ছিলেন পাকিস্তানি। তবে টেস্টে এমন হওয়ার সুযোগ নেই। এ ফরম্যাটে নিরপেক্ষ দেশের আম্পায়ার থাকা বাধ্যতামূলক।

রাওয়ালপিন্ডি টেস্ট খেলেই দেশে ফিরবেন মুমিনুলরা। তৃতীয় পর্বে আগামী এপ্রিলে একমাত্র ওয়ানডে ও সিরিজের বাকি টেস্ট খেলতে পাকিস্তানে যাবেন তারা।

তথ্যসূত্র: আইসিসি।

Leave a comment

Your email address will not be published.