মালিঙ্গার এখনো সুযোগ আছে দলে ফেরার।

বল হাতে আসছে মালিঙ্গা। আর তাতেই কাভু প্রতিপক্ষ ব্যাটসম্যানরা। অথচ হাথুরুসিংহে কোচ হওয়ার পর থেকে শ্রীলঙ্কার নির্ভরযোগ্য পেসার লাসিথ মালিঙ্গাকে ছাড়াই খেলছে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট। ডেথ ওভারে তার ভয়ংকর ইয়র্কারগুলো ছিল দারুণ কার্যকরী। সেই মালিঙ্গা আজ নেই দলে।

ক্রিকেটাঙ্গনে এক আলোচিত নাম মালিঙ্গা। ২০০৪ সালে অভিষেকের পর শ্রীলঙ্কা দলের পেস আক্রমনের গুরুত্বপূর্ণ সদস্য গত বছর পর্যন্ত খেলেছেন ২০৪টি ওয়ানডে। টানা চার বলে চার উইকেট পাওয়ার একমাত্র কৃতিত্ব শ্রীলংকার পেসারের। একদিনের আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ৩০০ উইকেট শিকার করেন মালিঙ্গা। আর তাতে মুত্তিয়া মুরালিধরন, চামিন্দা ভাস ও সনাৎ জয়াসুরিয়ার পর চতুর্থ বোলার হিসেবে এ মাইলফলক স্পর্শ করেছেন তিনি।

৬৮ টি-টুয়েন্টি ম্যাচে পেয়েছেন ৯০ উইকেট। সর্বশেষ খেলেছেন গতবছরের সেপ্টেম্বরে দেশের মাটিতে ভারতের বিপক্ষে। ৩০টি টেস্ট ম্যাচ খেলে উইকেট পেয়েছেন ১০১টি। খারাপ ফর্মের কারণে এরপর আরব আমিরাত, ভারত ও বাংলাদেশ সফরের দলে ডাক পাননি ডানহাতি এই পেসার। এমনকি দেশের মাটিতে বাংলাদেশ ও ভারতের বিপক্ষে নিদাহাস ট্রফির দলেও নেই তিনি।

তবে সেই দিন এখন আর আগের মত নেই। খারাপ ফর্মের জন্য অনেকদিন দলের বাইরে এই ৩৪ বছর বয়সী। কিন্তু দলের নতুন কোচ চন্ডিকা হাথুরুসিংহে তাকে তুলনা করেছেন বাস্কেটবল কিংবদন্তী মাইকেল জর্ডানের সাথে। তার মতে, মালিঙ্গার এখনো সুযোগ আছে দলে ফেরার।

তবে ঘরোয়া টি-টুয়েন্টি টুর্নামেন্টে দারুণ খেলছেন মালিঙ্গা। এখন পর্যন্ত টুর্নামেন্টে তৃতীয় সর্বোচ্চ উইকেট সংগ্রাহক তিনি। দলকে তুলেছেন সেমিফাইনালে। তাই কোচ হাথুরুসিংহেও বলেছেন মালিঙ্গার ফিরে আসার সম্ভাবনার কথা, ‘লাসিথ (মালিঙ্গা) দারুণ একজন খেলোয়াড়। ওর অনেক সুনাম আছে, শুধু শ্রীলঙ্কায় নয়, ক্রিকেট দুনিয়ায়। আমার মনে হয় সে ক্রিকেটের একজন আইকন। ঠিক যেমন বাস্কেটবলে মাইকেল জর্ডান তেমনি ক্রিকেটে মালিঙ্গা। সম্প্রতি ও ভাল করেছে। নির্বাচকদের মিটিংয়ের ব্যাপারে আমি কথা বলতে পারব না। তবে আমি মনে করি সে ভবিষ্যতে শ্রীলঙ্কান ক্রিকেটে ভূমিকা রাখতে পারবে।’

Leave a comment

Your email address will not be published.