রোনালদিনহো জড়িয়ে পড়ছেন রাজনীতিতে।

ব্রাজিল এবং বার্সেলোনা কিংবদন্তি রোনালদিনহো বুটজোড়া তুলে রেখেছেন বেশ কিছুদিন আগে। এখন হয়েছেন ফুটবলের শুভেচ্ছা দূত। বার্সেলোনার শুভেচ্ছা দূত হয়ে বেশ কিছুদিন আগেই এদেশ-সেদেশ ঘুরে বেড়িয়েছেন। এবার রোনালদিনহোর ব্রত হলো মানবসেবার। সে লক্ষ্যে তো উপর্যুক্ত জায়গায় যেতে হবে! সুতরাং, রোনালদিনহো জড়িয়ে পড়ছেন রাজনীতিতে। প্রতিদ্বন্দ্বীতা করবেন নির্বাচনে। সে লক্ষ্যে মনোনয়ন পত্রে স্বাক্ষরও করে ফেলেছেন ২০০২ বিশ্বকাপজয়ী এই ফুটবলার।

আগামী অক্টোবরেই ব্রাজিলের সাধারণ নির্বাচনে হয়তো সিনেট কিংবা চেম্বার অব ডেপুটিসের যে কোনো একটি পদে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করবেন। গত বছর ফুটবলকে পুরোপুরি বিদায় জানানোর পরই রোনালদিনহো ঘোষণা দিয়েছিলেন, পরবর্তীতে যে কোনো সময় রাজনীতিতে নামতে পারেন তিনি। তার সেই ইচ্ছা পূরণ হতে যাচ্ছে মাত্র এক বছরের মাথায়।

ব্রাজিলিয়ান রিপাবলিকান পার্টির (পিআরবি) হয়ে নিজের জন্মস্থান ব্রাসিলিয়াতে নির্বাচনে লড়াই করবেন রোনালদিনহো। নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করার জন্য পার্টির কাছে তার পক্ষ থেকে যে সব কাগজপত্র জমা দিতে হবে, সেগুলোয় অনুমোদন দিয়েছেন ৩৮ বছর বয়সী ব্রাজিলের কিংবদন্তি এই ফুটবলার।

এ উপলক্ষে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে রোনালদিনহো বলেন, ‘আমি খুব খুশি যে, এমন একটি প্রজেক্টে আমি যোগ দিয়েছি যেখান থেকে আমার দুর্বিনীত ইচ্ছা, মানুষের মধ্যে আনন্দ এবং সু-স্বাস্থ্যের সর্বোচ্চ বন্দোবস্ত করা। একই সঙ্গে আমাদের দেশটির উন্নতি এবং আধুনিকতার সর্বোচ্চ বাস্তবায়ন ঘটানোর।

পিআরবি প্রেসিডেন্ট এবং ব্রাজিলের সিনেটর এদুয়ার্দো লোপেজ বলেন, ‘এটা একটা ঐতিহাসিক মুহূর্ত। রোনালদিনহোর অন্য অনেক স্মরণীয় ঘটনার মতই একটি ঘটনা।’

Leave a comment

Your email address will not be published.