• Sunday , 27 September 2020

সকালে রসুন খাওয়ার উপকারিতা

সকালবেলা খালি পেটে রসুন খাওয়ার উপকারীতা আমরা জানি কি?  আসুন জেনে নেই এটি কতটা উপকারি!

রসুন হচ্ছে আমাদের রান্নার একটি অন্যতম উপকরণ। মাংস, মাছ ইত্যাদি সব রান্নাতেই আমরা কম বেশি রসুন ব্যবহার করে থাকি।তবে রান্না করা রসুনের চেয়ে কাঁচা রসুনের কার্যকারিতা বেশি। সকালে খালি পেটে রসুন খাওয়াটা অস্বস্তিকর মনে হলেও এটা স্বাস্থ্যের জন্য খুবই উপকারী।খালি পেটে রসুন খেলে তা শুধুমাত্র আমাদের বিভিন্ন রোগ থেকে বাঁচায় তাই নয় বিভিন্ন রোগের প্রতিষেধক হিসাবেও কাজ করে।এটি আমাদের মানসিক চাপ নিয়ন্ত্রণে সক্রিয় ভূমিকা রাখে। ফলে আমরা সুস্থ জীবন যাপন করতে পারি। রসুন

কাচাঁ রসুন খালি পেটে চিবিয়ে খাওয়াটা খুবই ভালো।কিন্তু খালি পেটে রসুন চিবিয়ে খেতে অনেকেই অস্বস্তি বোধ করেন আর মুখেও বাজে গন্ধ হয়  । সেক্ষেত্রে রসুন টুকরো করে কেটে পানি দিয়ে গিলে খাওয়াই ভালো। নিম্নে রসুনের উপকারী গুনাগুনগুলো তুলে ধরা হলো ——–

 

অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট সমৃদ্ধ :

 রসুন অ্যান্টিাক্সিডেন্ট সমৃদ্ধ হওয়ায় এটি মানুষের শরীরের রক্ত পরিশুদ্ধ করে ও রক্তে শর্করার মাত্রাও নিয়ন্ত্রণ করে।

 

ঠান্ডার সমস্যা দূর করে :

যাদের অল্পতেই ঠানৃডার সমস্যা আছে, তাদের জন্য রসুন খুবই উপকারী।প্রতিদিন টানা এক মাস সকালে খালি পেটে রসুন খেলে ঠান্ডার ধাত অনেকটাই কমে যায়।  

 

হার্টের সমস্যা দূর করে :

হার্টের সমস্যা দূর করতে রসুন খুবই উপকারী। এটি আমাদের হার্টবিট নিয়ন্ত্রণ করে এবং হার্টের সুষ্ঠু কার্যক্রম নিয়ন্ত্রণ করে।   

 

উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ করে :

যাদের উচ্চ রক্তচাপ রয়েছে তাদের জন্য রসুন খুবই উপকারী। কারন রসুন রক্তের চাপ নিয়ন্ত্রণ করে শরীরে সুষ্ঠুভাবে রক্তসঞ্চালনে  সহায়তা করে।

 

ভাইরাসের আক্রমণ প্রতিরোধ করে :

রসুনে রয়েছে অ্যান্টিবায়োটিক কিছু গুন যা ভাইরাসজনিত রোগের আক্রমণ থেকেও রক্ষা করে।যেমন – সিজনাল ফ্লু ইত্যাদ। 

 

সংক্রমনজনিত রোগ থেকে রক্ষা :

নিয়োমনিয়া, হাঁপানি, ব্রাংকাইটিস ইত্যাদি রোগের প্রতিরোধে রসুন খুবই কার্যকরী।

 

উন্নত করে বিপাকক্রিয়া:

খালি পেটে রসুন খেলে শরীরের বিপাকক্রিয়া উন্নত হয়। ফলে শরীর থেকে দূষিত টক্সিন বেরিয়ে যায় ও মেটাবলিরেটও বাড়ায়। ফলে ওজনও কমে।  

 

পেটের বিভিন্ন সমস্যা দূর করে :

রসুন যকৃত ও মূত্রাশয়ের কাজ সঠিকভাবে সম্পাদনে সহায়তা করে। ফলে পেটের বিভিন্ন সমস্যা যেমন – ডায়রিয়া, গ্যাসটিকের সমস্যা ইত্যাদি নিরসনে সহায়তা করে।  

 

যক্ষ্মা রোগ প্রতিরোধ :

রসুন যক্ষ্মা রোগ প্রতিরোধে খুবই কার্যকরী ও গুরুত্তপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। কয়েকদিন একটি সম্পূর্ণ রসুন সারাূিনে কয়েক বার অল্প অল্প করে খেলে যক্ষ্মা রোগ নির্মূল করা যায়।   

 

  প্রাকৃতিকভাবে অ্যান্টিবায়োটিক ও অ্যান্টিঅক্সিডেন্টে সমৃদ্ধ এই রসুন অনেক উপকারী।তাই ক্যান্সার, ডায়বেটিস, বিষন্নতা ইত্যাদি রোগের মত অনেক রোগের প্রতিষেধক হিসাবে কাজ করে।তবে কাঁচা রসুন সবাই খেতে পারে না অনেকের এলার্জি  হয়, এর ঝাজালো গন্ধ অনেকের  অস্বস্তি হয় ইত্যাদি বিভিন্ন রকমের সমস্যা হয় সেক্ষেত্রে তাদের খালি পেটে কাঁচা রসুন না খাওয়াই   ভালে।

 

 

BY

ত্রোপা চক্রবর্তী

Related Posts

Leave A Comment