সুপার লিগের মাধ্যমে বিশ্বকাপের যোগ্যতা যাচাই শুরু 

মহামারী করোনার কারণে দীর্ঘ দিন বন্ধ ছিল সব খেলাধূলা । করোনা কাল শেষে ইংল্যান্ড ঘরের মাঠে ওয়েস্ট ইন্ডিজদের বিপক্ষে টেস্ট নিয়ে ব্যাস্ত। দীর্ঘদিন খেলা বন্ধ থাকায় শিডিউল বিপর্যয়ে পড়েছে ক্রিকেটের সব আয়োজনগুলো । কয়েক মাস পিছিয়ে দেয়া হয়েছিল আইসিসি ক্রিকেট বিশ্বকাপের সুপার লিগ । তবে এবার মাঠে গড়াচ্ছে সুপার লিগ । 

ওয়ানডে বিশ্বকাপ – ২০২৩ এ খেলার যোগ্যতা অর্জনের জন্য ওয়ানডে সুপার লিগ চালুর সিদ্ধান্ত নিয়েছে ক্রিকেটের নিয়ণ্ত্রক সংস্থা আইসিসি।বৃহস্পতিবার ৩০ জুলাই ইংল্যান্ড ও আয়ারল্যান্ডের মধ্যকার তিন ম্যাচ সিরিজের প্রথম ওয়ানডের মধ্য দিয়ে শুরু হচ্ছে আইসিসির এই নতুন সুপার লিগ পদ্ধতি । 

গত মে মাসে এই সুপার লিগ চালুর কথা থাকলেও করোনাভাইরাসের কারণে পিছিয়ে যায় । এই সুুপার লিগের মাধ্যমে আগামী ২০২৩ বিশ্বকাপের বাছাই পক্রিয়া শুরু হচ্ছে । ৩ বছর মেয়াদী এই লিগে অংশ নেবে ১৩ দল । যার মধ্য ১২ টি টেস্ট খেলুড়ে দেশ । আরেকটি দল হলো ২০১৫ – ২০১৭ আইসিসি ওর্য়াল্ড ক্রিকেট লিগের বিজয়ী দল নেদারল্যান্ডস।প্রতিটি দল খেলবে ৮ টি করে সিরিজ । যার মধ্য হোমে হবে ৪ টি এবং অ্যাওয়ে হবে ৪ টি সিরিজ । প্রত্যেকটা সিরিজ হবে ৩ ম্যাচের । লিগের সেরা ৭ টি দল সরাসরি ভারতে ২০২৩ বিশ্বকাপে অংশ নিবে। ভারত স্বাগতিক দেশ বিধায় সরাসরি বিশ্বকাপ খেলবে ।

প্রত্যেকটি ম্যাচ জয়ে  থাকবে ১০ পয়েন্ট। টাই অথবা পরিত্যাক্ত হলে পাবে ৫ পয়েন্ট । সরাসরি বিশ্বকাপে উঠতে ব্যর্থ ৫ দলসহ সহযোগী ৫ দল বিশ্বকাপ বাছাই পর্বে খেলবে । সেইখান থেকে ২ দল সুযোগ পাবে মূল বিশ্বকাপে ।

আইসিসির জেনারেল ম্যানেজার জিওফ অ্যালারডাইস বিশ্বকাপের সুপার লিগ আয়োজনের বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেছেন, ওয়ানডে ক্রিকেটকে প্রাসঙ্গিক করে তুলবে এই লিগ, যা চলবে তিন বছর ধরে । বিশ্বকাপের যোগ্যতার মাপকাঠি হবে এই লিগ ।

Leave a comment

Your email address will not be published.