হোয়াইটওয়াশ হলো বাংলাদেশ ক্রিকেট দল।

দারুণ প্রতিদ্বন্দ্বীতা করেও তিন ম্যাচ সিরিজের শেষ টি-টোয়েন্টি ম্যাচে আফগানিস্তানের কাছে ১ রানে পরাজিত হয়ে হোয়াটওয়াশ হলো বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। বৃহস্পতিবার ভারতের দেরাদুনে শেষ ম্যাচে আফগানদের দেয়া ১৪৬ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে ১৪৪ রানে শেষ হয়েছে বাংলাদেশের ইনিংস। এর ফলে ক্রিকেটের নতুন উদীয়মান শক্তি আফগানিস্তানের কাছে হোয়াইটওয়াশ লজ্জা বরণ করতে হলো বাংলাদেশকে।

রান তাড়া করতে নেমে শুরুতেই ব্যাটিং বিপর্যয়ে পরে বাংলাদেশ। দলীয় ১৬ রানে ওপেনার তামিম ইকবাল ফিরে যাওয়ার পর ৩২ ‍ও ৩৫ রানে রান আউটের শিকার হন সৌম্য সরকার ও লিটন দাস। এর কিছুক্ষণ পর ফিরে যান অধিনায়ক সাকিব আল হাসানও। দলীয় রান তখন ৫৩।

হোয়াইটওয়াশ হলো বাংলাদেশ

এরপর মুশফিকুর রহীম ও মাহমুদুল্লাহ রিয়াদের পঞ্চম উইকেটের জুটি লড়াইয়ে ফেরায় বাংলাদেশকে। দুজনে সময়ের সাথে পাল্লা দিয়ে রান তুলতে থাকেন। মুশফিক কিছুটা ধীর গতিতে ব্যাটিং করলেও মাহমুদুল্লাহর ব্যাট ছিলো চড়াও। তবে রশিদ খানের করা ১৮তম ওভারে মাত্র ৩ রান তুলতে পারে বাংলাদেশ। এখানে পিছিয়ে যায় টাইগার বাহিনী।

শেষ দুই ওভারে দরকার ছিলো ৩০ রান। করিম জানাতের করা ১৯তম ওভারে ভয়ঙ্কর হয়ে ওঠেন
মুশফিক। টানা ৫টি বাউন্ডারি আদায় করে নেন এই মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যান। শেষ বলে একটি সিঙ্গেল নিয়ে ওই ওভার থেকে আসে ২১ রান। ম্যাচে ফিরে আসে বাংলাদেশ।

শেষ দুই ওভারে ম্যাচে ফিরেছে বাংলাদেশ

শেষ ওভারে দরকার ছিলো ৯ রান। বল করতে আসে আফগানিস্তানের সেরা বোলার লেগ স্পিনার রশিদ খান। রশিদের প্রথম বলেই আউট হয়ে যান মুশফিক। ৩৭ বলে ৪৬ রানের দুর্দান্ত ইনিংসটি শেষ হয় ডিপ স্কয়ার লেগে নাজিবুল্লাহ জাদরানের ক্যাচে।

৫ বলে দরকার ৮ রান। মাহমুদুল্লাহ এক রান নেয়ার পর নতুন ব্যাটসম্যান আরিফুল পরের বলে নেন দুই রান। এর পরের বলে আরেকটি সিঙ্গেল নিলে সমীকরণ দাড়ায় ২ বলে ৫ রানের। পঞ্চম বলে সিঙ্গেল নেন মাহমুদুল্লাহ। শেষ বলে দরকার চার। আরিফুলের উচু করে মারা শট বাউন্ডারি দারুণ ফিল্ডিং করে ম্যাচ বাঁচান আফগান ফিল্ডার শফিক। দৌড়ে দুই রান নেন ব্যাটসম্যানরা। বাংলাদেশ হারে এক রানে।

৩৮ বলে ৪৫ রান করে অপরাজিত ছিলেন মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ। চার ওভারে ২৪ রান দিয়ে এক উইকেট নেয়া রশিদ খান এই ম্যাচেও আফগানদের জয়ের নায়ক।

আগের দুই ম্যাচ জিতে ইতোমধ্যেই সিরিজ জয় নিশ্চিত করেছে আফগানরা। তাই এই ম্যাচটি বাংলাদেশের জন্য হোয়াইটওয়াশ এড়ানোর ম্যাচ। দেরাদুনে তিন ম্যাচ টি-টোয়েন্টি সিরিজের তৃতীয় ও শেষ ম্যাচে বাংলাদেশকে জয়ের জন্য ১৪৬ রানের লক্ষ্য দিয়েছে আফগানিস্তান। নির্ধারিত ২০ ওভারে ছয় উইকেট হারিয়ে তারা করেছে ১৪৫ রান।

হোয়াইটওয়াশ হলো বাংলাদেশ

টস জিতে ব্যাট করতে নেমে পাওয়ার প্লের প্রথম ছয় ওভারে দারুণ দাপুটে ব্যাটিং করে আফগানিস্তান। দলটির দুই ওপেনার পাওয়ার প্লে’র ছয় ওভারে তোলেন ৪৩ রান। এসময় কোন উইকেট নিতে পারেনি বাংলাদেশী বোলাররা। মারকুটে ওপেনার মোহাম্মদ শাহজাদ ছিলেন আগ্রাসী। প্রথম ওভারেই স্পিনার মেহেদী হাসান মিরাজকে ১৮ রান নিয়ে স্বাগত জানিয়েছেন শাহজাদ। এর পরের তিনটি ওভারে নাজমুল ইসলাম, সাকিব আল হাসান ও আবু জায়েদ কিপটে বোলিং করলেও রানে গতি পুরোপুরি থামানো যায়নি।

তবে ভয়ঙ্কর হয়ে ওঠার আগেই মারকুটে ওপেনার মোহাম্মদ শাহজাদকে ফিরিয়েছেন স্পিনার নাজমুল ইসলাম অপু। অষ্টম ওভারের চতুর্থ বলে শাহজাদকে এলবিডব্লিউ’র ফাঁদে ফেলেন এই স্পিনার। ২২ বলে ৩ চার ও ১ ছক্কায় দলীয় সর্বেোচ্চ ২৬ রান করেছেন তিনি।

হোয়াইটওয়াশ হলো বাংলাদেশ

আর নবম ওভারে আরেক ওপেনার ওসমান গনিকে ফিরিয়েছেন পেসার আবু জায়েদ। উইকেটরক্ষক মুশফিকুর রহীমের কাছে ক্যাচ দিয়েছেন ওসমান। ২৬ বলে ১৯ রান করেছেন তিনি।

১০ ওভার শেষে আফগানিস্তান দুই উইকেট হারিয়ে তোলে ৬৪ রান। আর শেষ ১০ ওভারে তারা তুলেছে ৮১ রান। ৫৫ রানের উদ্বোধনী জুটির পর দলটির দ্বিতীয় সর্বোচ্চ জুটি ছিলো তৃতীয় উইকেটে আসগর স্টানিকজাই ও সামিউল্লাহ শেরওয়ানির ৩৬ রানের জুটি।

এক সময় বড় স্কোর চোখ রাঙালেও শেষ দুই ওভারে দারুণ বোলিং করেছেন বাংলাদেশর দুই ওপেনার। ১৮ ওভার শেষে আফগানদের রান ছিলো ৪ উইকেটে ১৩৫। সেখান থেকে ১৬৫-৭০ রান হওয়াটা স্বাভাবিক ছিলো। তবে আফগানদের দেড়শোর নিচে আটকে রাখার কৃতিত্ব দুই স্পিনারের।

১৯তম ওভারে বাংলাদেশের অধিনায়ক সাকিব আল হাসান ৭ রান দিয়ে তুলে নিয়েছেন নাজিবুল্লাহ জাদরানের উইকেট। আর ২০তম ওভারে বাংলাদেশ দলের সবচেয়ে সফল বোলার নাজমুল ইসলাম অপু মাত্র ৩ রান খরচ করে নিয়েছেন একটি উইকেট। এই দুটি ওভারই ম্যাচে ফিরতে সাহায্য করেছে বাংলাদেশকে। শেষ পর্যন্ত আফগানরা থেমেছে ৬ উইকেটে ১৪৫ রানে।

চার ওভার বোলিং করে ১৮ রান দিয়ে দুটি উইকেট নিয়েছে নাজমুল ইসলাম অপু। এছাড়া আবু জায়েদ ২৭ রানে দুটি উইকেট নিয়েছেন। সাকিব আল হাসান ১৬ রানে নিয়েছেন একটি উইকেট।

শেষ ম্যাচে বাংলাদেশ দলে ৩টি পরিবর্তন

আফগানিস্তানের বিপক্ষে তৃতীয় ও শেষ টি-টোয়েন্টি ম্যাচে টস হেরে ফিল্ডিংয়ে নেমেছে বাংলাদেশ দল। বাংলাদেশ দলে আর তিনটি পরিবর্তন আনা হয়েছে। ম্যাচ জিতে হোয়াইটওয়াশ এড়াতে মরিয়া সাকিব বাহিনীর সাথে আজ যোগ দিয়েছেন অলরাউন্ডার আরিফুল হক ও মেহেদী হাসান মিরাজ।

তারা এসেছেন অলরাউন্ডার মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত ও ব্যাটসম্যান সাব্বির রহমানের পরিবর্তে। অন্যদিকে পেসার রুবেল হোসেনের জায়গায় এসেছেন পেসার আবু জায়েদ।

আফগানিস্তান দলেও এসেছে একটি পরিবর্তন। শাপুর জাদরানের পরিবর্তে খেলছেন আফতাব আলম।

 

 

 

 

source-nayadiganta

Leave a comment

Your email address will not be published.