Categories
আন্তর্জাতিক

দীর্ঘ অপেক্ষার পর ২৫২ জন প্রবাসীকে নিয়ে সৌদি আরবে সাউদিয়ার ফ্লাইট

করোনাভাইরাসের কারনে বাংলাদেশ-সৌদির ফ্লাইট বন্ধ ছিল অনেকদিন। অবশেষে ২৫২ জন  প্রবাসীকে নিয়ে রিয়াদের উদ্দেশ্য ঢাকা ছেড়েছে সৌদি অ্যারাবিয়ান এয়ারলাইন্সের একটি  ফ্লাইট । ২৩ সেপ্টেম্বর রাত ১ টা ৮ মিনিটের দিকে হযরত শাহাজালাল আন্তর্জাতিক বিমান বন্দর ত্যাগ করে ফ্লাইটটি। রাত সাড়ে ১২ টায় ছেড়ে যাওয়ার কথা থাকলেও এটি ছাড়তে কিছুটা বিলম্ব করে । স্থানীয় সময় ভোর ৪ টা ২৫ মিনিটে ফ্লাইটটি সৌদি আরবে পৌছায়।

 সৌদি  আরব থেকে ছুটিতে আসা কয়েক হাজার প্রবাসীর ভিসার মেয়াদ শেষ হচ্ছে আগামী ৩০ সেপ্টেম্বর । এর মধ্যে সৌদি যেতে বিমানের টিকিট দরকার। কিন্তু  সেই টিকিট পেতেই যত ভোগান্তি ।গত ৩ দিন ধরে টিকিট না পেয়ে রাজধানীতে বিক্ষোভ করেছেন প্রবাসীরা ।গত ২৪ মার্চ  দেশের করোনাভাইরাসের সংক্রমণ বাড়ায় সব আন্তর্জাতিক ও অভ্যন্তরীণ ফ্লাইট চলাচল বন্ধ করে দেয় বাংলাদেশ বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ (বেবিচক) ।

সৌদি  আরব সরকারের নিষেধাজ্ঞার কারণে দেশটিতে এতদিন বাংলাদেশের সঙ্গে বিমান চলাচল বন্ধ ছিল । এদিকে আগামী ১ অক্টোবর থেকে সৌদিতে বাণিজ্যিক ফ্লাইটের অনুমতি পেয়েছে বিমান বাংলাদেশ  এয়ারলাইন্স । অপরদিকে ২৩ সেপ্টেম্বর থেকে বাংলাদেশ রুটে সপ্তাহে ২ টি ফ্লাইটের ঘোষনা দেয় সৌদিয়া । অনেক প্রবাসীর ভিসার মেয়াদ শেষের দিকে থাকায় সাউদিয়াকে আরও বেশি সংখ্যক ফ্লাইট পরিচালনার অনুমতি দেয়া হতে পারে বলে জানিয়েছে বাংলাদেশ বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ (বেবিচক) ।

সংস্থাটির চেয়ারম্যান এয়ার ভাইস মার্শাল মো.মফিদুর রহমান বলন ,এতদিন সৌদি  আরবের সঙ্গে আমাদের আকাশ পথে যোগাযোগ পুরোপুরি বিচ্ছিন্ন ছিল ।মধ্যেপ্রাচ্যের অনেক দেশেই  ফ্লাইটশুরু করেছি । আমরা চাচ্ছিলাম সৌদি  আরব থেকেও ফ্লাইট শুরু হোক । আমরা সর্বাত্মক   সহযোগীতা  করবো । সৌদি  আরবে  বাংলাদেশের  রাষ্টদূতের  সঙ্গে কথা বলেছি । বাংলাদেশিদের ফিরে যেতে সাউদিয়া যে কয়টি  ফ্লাইটের অনুমোদন চাইবে ,আমরা দিবো । যেন প্রবাসীরা ফিরে যেতে পারেন । একই সঙ্গে আমাদের বিমান বাংলাদেশেও যেন যেতে পারে সেজন্য কাজ করছি ।

Categories
আন্তর্জাতিক

২৪৪৯ টাকা ভরিতে বাড়িয়ে স্বর্ণের নতুন দাম 

বাংলাদেশ জুয়েলার্স সমিতি (বাজুস) স্বর্ণের নতুন দাম নির্ধারণ করেছে । এবার ভরিতে বাড়ানো হয়েছে ২৪৪৯ টাকা । ফলে দেশের বাজারে ভালো মানের স্বর্ণের দাম ভরিতে বেড়ে ৭৬ হাজার ৪৫৮ টাকা দাঁড়িয়েছে । 

বাজুস এক সংবাদ বিজ্ঞপ্ততিতে (১৭ সেপ্টেম্বর) বৃহস্পতিবার এ তথ্য জানায় । আজ শুক্রবার (১৮ সেপ্টেম্বর) থেকে নতুন দর কার্যকর হবে । বিজ্ঞপিতে বলা হয়েছে, করোনার কারণে সৃষ্ট অর্থনৈতিক সংকট, চীন- যুক্তরাষ্ট্রের বাণিজ্য যুদ্ধের কারণে ইউএস ডলারের প্রাধান্য খর্ব, আন্তর্জাতিক ফ্লাইট বন্ধ, তেলের দরপতন ও পর্যাপ্ত আমদানির অভাবে দেশীয় বুলিয়ন/পোদ্দার মার্কেটে স্বর্ণের মূল্যবৃদ্ধি পেয়েছে । সার্বিক পরিস্থিতি বিবেচনা করে বাজুস এর সিদ্ধান্ত মোতাবেক (১৮ সেপ্টেম্বর) শুক্রবার থেকে দেশের বাজারে স্বর্ণ ও রুপার নতুন মূল্য নির্ধারণ করেছে ।

শুক্রবার থেকে ভালো মানের অর্থাৎ ২২ ক্যারেটের প্রতিভরি (১১.৬৬৪গ্রাম) স্বর্ণের ‍দাম ২৪৪৯ টাকা বাড়িয়ে নতুন দাম নির্ধারণ করা হয়েছে ৭৬ হাজার ৪৫৮ টাকা । ২১ ক্যারেটের দাম ৭৩ হাজার ৩০৮ টাকা, ১৮ ক্যারেটের দাম ৬৪ হাজার ৫৬০ টাকা ও সনাতন পদ্ধতির প্রতিভরি স্বর্ণের দাম ৫৪ হাজার ২৩৮ টাকা । ২১ ক্যারেটের প্রতিভরি রুপার দাম পূর্বের নির্ধারিত – ৯৩৩ টাকাই বহাল আছে ।

Categories
আন্তর্জাতিক

বৈরুত বিস্ফোরণ ও লেবানন সংকট ‍

বৈরুত বিস্ফোরণ ও লেবানন সংকট ‍

জন্ম থেকেই জ্বলছে মধ্যপ্রাচের দেশ লেবানন । দেশটির বৈভ’ব ও ঐশ্বর্যের ঝিলিক ১৯৭৫-১৯৯০ সাল পর্যন্ত চলা গৃহযুদ্ধ, বেপরোয়া দুর্নীতি ও আঞ্চলিক অস্থিরতার কারণে ধ্বংস হয়ে গেছে । সর্বশেষ ৪ আগস্ট ২০২০ দেশটির রাজধানী বৈরুতে ভয়াবহ বিস্ফোরণের ঘটনা এ পরিস্থিতিকে আরো জটিল করে তুলছে ।বৈরুত বিস্ফোরণ বৈরুত বিস্ফোরণের আদ্যোপান্ত ও দুর্দশাগ্রস্ত লেবাননের ভবিষ্যত নিয়ে আমাদের বিশেষ আয়োজন । 

বৈরুত বিস্ফোরণ 

৪ আগস্ট ২০২০ এক সময়ের ‘মধ্যপ্রাচ্যের প্যারিস’ হিসেবে খ্যাত লেবাননের রাজধানী ও আশেপাশের এলাকা ব্যাপক ক্ষতিগ্রস্ত হয় । এতে অন্তত দেড় শতাধিক মানুষ নিহত ও ছয় হাজারের বেশি মানুষ আহত হন । গৃহহীন হয়ে পড়ে তিন লাখ মানুষ । ক্ষয়ক্ষতি হয় ১৫ কোটি ডলারের । শহরটির ৫,০০০ বছরের ইতিহাসে । এমন পরিস্থিতি আর কখনো তৈরি হয়নি । 

বিস্ফোরণের কারণ 

বৈরুত বিস্ফোরণের উৎস ছিল বন্দরের গুদামে ৬ বছর ধরে মজুদ থাকা ২,৭৫০ মেট্রিক টন অ্যামোনিয়াম নাইট্রেট । এতে আগুন লেগেই বৈরুতের বিপর্যয়কর এ বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। বিস্ফোরণে বন্দরে ৪৩ মিটার বা ১৪১ ফুট গর্তের সৃষ্টি হয় । মার্কিন ভূ-পদার্থ ইনস্টিটিউটের তথ্যমতে, এ বিস্ফোরণে ৩.৩ মাত্রার ভূমিকম্প হয় ।

সমসাময়িক ইতিহাসে পারমাণবিক বোমা ছাড়া এত বড় বিস্ফোরণ দেখেনি বিশ্ব । এতে যে শকওয়েভ তৈরি হয়, তা হিরোশিমায় ফেলা পারমাণবিক বোমার ২০-৩০% বেশি শক্তিশালী ছিল । বিস্ফোরণটি এতই শক্তিশালী ছিল যে, বৈরুত থেকে ১৬০ কিলোমিটার দূরের দ্বীপরাষ্ট্র সাইপ্রাসেও তা অনুভূত হয়। 

বৈরুত বিস্ফোরণ-পরবর্তী লেবানন 

৪ আগষ্ট ২০২০ অ্যামোনিয়াম নাইট্রেট কেবল লেবাননের রাজধানী বৈরুতকেই বিধ্বস্ত করেনি, বিধ্বস্ত করেছে পুরো দেশ এবং এর সরকারকেও । বিস্ফোরণের পরপরই দুর্নীতি ও স্বজনপ্রীতির অভিযোগে সরকারের পদত্যাগের দাবিতে বিধ্বস্ত নগরী থেকে ক্রমেই বিক্ষোভের নগরীতে পরিণত হয় বৈরুত । হাজার হাজার মানুষ রাস্তায় নেমে আরব বসন্তের মতো স্লোগান দেয় ‘আল শা’ব ইউরিদ ইশকাত আল নিজাম’ (জনতা ক্ষমতাসীনের পতন চায়) ।

সরকারের পদত্যাগ 

৬ মে ২০১৮ দীর্ঘ ৯ বছর পর দেশটিতে পার্লামেন্ট নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয় । নির্বাচনে ৫৩% আসনে জয়ী হয় হিজবুল্লাহ সমর্থিত প্রার্থী । কিন্তু প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণ করেন সাদ আল হারিরি । সরকারের দুর্নীতি ও স্বজনপ্রীতির অভিযোগে শুরু হওয়া গণবিক্ষোভের মুখে ২৯ অক্টোবর ২০১৯ পদত্যাগ করেন তিনি । এরপর ২৯ অক্টোবর  ২০১৯ পদত্যাগ করেন তিনি । এরপর ১৯ ডিসেম্বর ২০১৯ নতুন প্রধানমন্ত্রী হিসেবে নিযুক্ত হন বৈরুতের আমেরিকা ইউনিভার্সিটির সাবেক অধ্যাপক ও দেশটির সাবেক শিক্ষামন্ত্রী হাসান দিয়াব । প্রধানমন্ত্রী হিসেবে নিয়োগ লাভের প্রায় এক মাস পর ২১ জানুয়ারি ২০২০ তিনি নতুন মন্ত্রিসভা গঠনের ঘোষণা দেন ।

তার ২০ সদস্যের মন্ত্রিসভার বেশিরভাগ সদস্যই ছিল হিজবুল্লাহ ও মিত্র দলগুলোর সদস্য । হাসান দিয়াব তার মন্ত্রিসভাকে দেশটির ইতিহাসে প্রথম সম্পূর্ণ টেকনোক্রেট সদস্য নিয়ে গঠিত বলে দাবি করেন । বৈরুত বিস্ফোরণের পর গণবিক্ষোভের মুখে ১০ আগষ্ট ২০২০ মন্ত্রিসভাসহ পদত্যাগ করেন প্রধানমন্ত্রী হাসান দিয়াব । তবে নতুন মন্ত্রিসভা গঠন না হওয়া পর্যন্ত তার সরকার তত্ত্বাবধায়কের ভূমিকায় থাকবে । আটমাস বয়সি দিয়াব সরকারের পদত্যাগ আকণ্ঠ দুর্নীতিতে নিমজ্জিত লেবাননকে কতটা উওরণ ঘটাতে পারবে, তাই এখন দেখার বিষয় । 

দুর্দশাগ্রস্ত লেবানন 

রাজনৈতিক টানাপড়েন এবং দুর্নীতির কবলে পড়ে অর্থনৈতিকভাবও খুব একটা এগোতে পারেনি  লেবানন । দীর্ঘদিন থেকেই অর্থনৈতিকভাবে প্রায় পঙ্গু দেশটি বিদেশি সাহায্যের ওপর নির্ভরশীল। সাম্প্রতিক বছরগুলোতে এ সাহায্য চরম দুর্নীতির কারণে শুকিয়ে আসছিল । প্রায় ৭০ লাখ জনসংখ্যা এ দেশে উৎপাদন প্রায় নেই বললেই চলে । মুদ্রার দরপতনের কারণে বহু লেবানিজের পক্ষে মৌলিক খাদ্যের ব্যবস্থা করাও এখন কঠিন হয়ে দাঁড়িয়েছে । লেবাননের মৌলিক খাদ্য চাহিদার বেশির ভাগই অন্য দেশ থেকে কিনে আনতে হয়। এর বেশির ভাগ আমদানি হয় বৈরুত বন্দরের মাধ্যমে, যা ৪ আগষ্ট ২০২০ পরমাণু বোমার মতো বিস্ফোরণে ধ্বংস হয়ে গেছে। বহু খাদ্যগুদাম ছিল বন্দরের আশপাশের এলাকাগুলোতে । সেগুলো ও ধসে পড়ে লেবানিজদের দুর্ভিক্ষের কিনারায় ঠেলে দেয় । হাজারো বাড়িঘর ধুলার সাথে মিশে গেছে । বৈরুত বিস্ফোরণের অর্থনৈতিক সংকটের মুখে থাকা লেবাননকে আরো গভীর সংকটে নিক্ষেপ করেছে । 

হতাশাগ্রস্ত লেবানন 

বৈরুত বিস্ফোরণের পর হতাশার পথেই অগ্রসর হচ্ছে লেবানন । পরিস্থিতি এতটাই খারাপ যে, নাগরিকরা নিজের দেশকে আরেক দেশের অধীনে দিয়ে দিতে আবেদন জানান । ‘লেবাননকে আগামী ১০ বছরের জন্য ফ্রান্সের অধীনে নিন’ শীর্ষক ঐ আবেদনে বলা হয়, লেবাননের কর্মকর্তারা দেশ পরিচালনায় পুরোপুরি ব্যর্থ । তাই সুষ্ঠু পরিচালনা পদ্ধতি প্রতিষ্ঠা করতে লেবাননের ফ্রান্সের অধীনে যাওয়া উচিত । 

সর্বশেষ পরিস্থিতি বৈরুত পুনর্গঠনে তহবিল গঠন 

১৪ আগষ্ট ২০২০ অ্যামোনিয়াম নাইট্রেট বিস্ফোরণে বিধ্বস্ত লেবাননের রাজধানী বৈরুত পুনর্গঠনে জাতিসংঘ ৫৬.৫ কোটি ডলারের একটি তহবিলের ঘোষণা দেয় । সহায়তা তহবিলে অর্থদানে সদস্যরাষ্ট্র ও আন্তর্জাতিক দাতাগোষ্ঠীগুলোর প্রতি আবেদন জানায় সংস্থাটি ।

সেনাবাহীর ক্ষমতা বৃদ্ধি 

রাজধানী বৈরুতে বিস্ফোরণের পর ১৩ আগষ্ট ২০২০ পার্লামেন্টের প্রথম অধিবেশনে দেশটির সেনাবাহিনীর ক্ষমতা বাড়ানোর একটি বিল অনুমোদন করা হয় । এর মধ্য দিয়ে দেশটির সামরিক বাহিনীর ক্ষমতা অধিগ্রহণের সুযোগ তৈরি হয়। ফলে বাকস্বাধীনতা, সমাবেশের স্বাধীনতা ও গণমাধ্যমের স্বাধীনতায় হস্তক্ষেপ করতে পারবে দেশটির সেনাবাহিনী । এছাড়া তারা প্রত্যেক গৃহে প্রবেশ করতে পারবে এবং গেপ্তার করতে পারবে । 

১. প্রথম বিশ্বযুদ্ধের পর অটোমান সাম্রাজ্যের পতন হলে ফরাসি উপনিবেশের অধীনে আসে লেবানন । ১৯৮৩ সালে অলিখিত এক চুক্তির ভিত্তিতে যাত্রা শুরু করে আজকের লেবানন প্রজাতন্ত্র । 

২. লেবাননের বর্তমানে ১৫ টি ধর্মের মানুষের বাস । প্রায় ৭০ লাখ জনসংখ্যার মধ্যে ২০ লাখই সিরিয় আর ফিলিস্তিনি শরণার্থী।

৩. ১৯৭৫-১৯৯০ সাল পর্যন্ত লেবাননে গৃহযুদ্ধে নিহত হয় ১,২০,০০০ মানুষ । আর দেশটির ভেতরেই বাস্তুচ্যুত হয় ৭৫,০০০ । 

৪. ১৯৪৩ সালের অলিখিত চুক্তি অনুযায়ী, ‘রাজনৈতিক ক্ষমতার ভাগাভাগি পদ্ধতি’র মাধ্যমে পরিচালিত হয়ে আসছে লেবানন । চুক্তি অনুযায়ী লেবাননের প্রেসিডেন্ট হন । একজন ম্যারোনাইট খ্রিস্টান, যার মেয়াদ ৬ বছর । কোনো ব্যক্তি একবারই এ পদে দায়িত্ব পালন করতে পারবেন । চার বছরের জন্য প্রধানমন্ত্রী হন একজন সুন্নি মুসলমান । আর স্পিকার হন শিয়া সম্প্রদায় থেকে।

 

রফিক হারিরি হত্যার বিচার  

 

ক্ষমতার টানাপড়েনে ১৪ ফ্রেব্রুয়ারি ২০০৫ লেবাননের রাজধানী বৈরুতের সমুদ্র তীরবর্তী সড়কে এক গাড়িবোমা হামলায় নিহত হন তখনকার প্রধানমন্ত্রী রফিক হারিরি । এ ঘটনায় হারিরিকে হত্যার ষড়যন্ত্রের অভিযোগে হিজবুল্লাহর পাঁচ সদস্যের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করা হয় । এর মধ্যে হিজবুল্লাহর সামরিক অধিনায়ক মুস্তাফা আমিন বদর-এদ্দিন ২০১৬ সালে সিরিয়ায় নিহত হলে তার নাম অভিযোগ থেকে সরিয়ে নেয়া হয় । রফিক হারিরির হত্যাকাণ্ডের বিচারের জন্য ট্রাইব্যুনাল গঠনের লক্ষ্যে ৩০ মে ২০০৭ জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদ একটি প্রস্তাব গ্রহণ করে । এরপর ১ মার্চ ২০০৯ নেদারল্যান্ডসে কার্যক্রম শুরু করে জাতিসংঘ-সমর্থিত স্পেশাল ট্রাইব্যুনাল ফর লেবানন (STL) ।

হারিরি হত্যাকাণ্ডের দীর্ঘ ১৫ বছর পর ১৮ আগষ্ট ২০২০ নেদরল্যান্ডসের দ্য হেগে STL রফিক হারিরি হত্যা মামলায় রায় প্রদান করে । বিচারের ২৬০০ পৃষ্ঠার রায় পড়ে শোনান বিচারক ডেভিড রে । রায়ে লেবাননের সাবেক প্রধানমন্ত্রী রফিক আল হারিরির হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে দেশটির শিয়া রাজনৈতিক গোষ্ঠী হিজবুল্লাহর নেতাদের বা প্রতিবেশী সিরিয়া সরকারের যুক্ত থাকার কোনো প্রমাণ পাওয়া যায়নি ।

তবে অভিযুক্ত হিজবুল্লাহ গোষ্ঠীর নিচের সারির চার সদস্যের মধ্যে আসাদ সাবরা, হুসেইন ওনাইসি ও হাসান হাবিব নেরহিকে খালাস দেয়া হয় । অপর অভিযুক্ত সেলিম আয়াশকে দোষী সাব্যস্ত করা হয় । তার ব্যবহৃত একটি মোবাইল ফোন বোমা হামলার গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে বলে প্রসিকিউটররা প্রমাণ করেন ।

Categories
আন্তর্জাতিক

জার্মানিতে ‘সাদা সোনা’ আবিষ্কার 

জার্মানিতে ‘সাদা সোনা’ আবিষ্কার 

লিথিয়াম-‘সাদা সোনা’ হিসেবে খ্যাত । বিশ্বে এ খনিজ মজুদের প্রায় ৫০ ভাগ আছে বলিভিয়ার দক্ষিণে আন্দিজ পর্বতমালার একেবারে ওপরের ‍দিকে । পটোসি নামে পরিচিত এ অঞ্চলটি কুইচুরা এবং আমারা আদিবাসীদের একটি গরীব এলাকা ।

এ লিথিয়ামই হতে যাচ্ছে পরবর্তী বিশ্বের সবচেয়ে কাঙ্ক্ষিত বস্তুু । মোবাইল থেকে শুরু করে ইলেকট্রনিক কার-আজ ও আগামী ‍দিনের প্রায় সব বৈদ্যুতিক যন্ত্রের প্রাণভোমরা যে ব্যাটারি, তার প্রধান রসদ লিথিয়াম ।

এতদিন এ লিথিয়াম আমদানি করে নিজের চাহিদা মেটাতো জার্মানি । তবে বিজ্ঞানীদের সাফল্যে এখন সেই লিথিয়াম রপ্তানির স্বপ্নও দেখছে জার্মানি । সম্প্রতি থার্মাল ওয়াটার থেকে লিথিয়াম আহরণের উপায় উদ্ভাবন করেন জার্মানির Karlsruhe Institute of technology (KIT)  এর বিজ্ঞানীরা । জার্মানির দক্ষিণ-পশ্চিমের ওবারাইনগ্রাবেনের (আপার রাইন রিফট ভ্যালি) মাটির গভীর থেকে থার্মাল ওয়াটার তুলে তা থেকে বের করা হয় লিথিয়াম । 

 

এক বিবৃতিতে  KIT বলে ‘প্রতি লিটার (থার্মাল ওয়াটার)

থেকে ২০০ মিলিগ্রাম পর্যন্ত লিথিয়াম বের করতে পারে বিজ্ঞানীরা । মাটির নিচ থেকে লিথিয়াম উত্তোলনের সহজ একটা প্রযুক্তিও উদ্ভাবন করেন KIT’র গবেষক ইয়েন্স গ্রিমার ও তার সহকর্মী ফ্লোরেন্সিয়া সারাভিয়া । গ্রিমার-সারাভিয়া নামে তার পেটেন্টও করা হয় । জার্মান দুই বিজ্ঞানীর উদ্ভাবিত প্রযুক্তির তুলনায় অনেক সহজে এবং কম সময়ে, বেশি লিথিয়াম তোলা যাবে । 

 

লাল সোনা জাফরান 

মসলার রাজা বা লাল সোনা হিসেবে বিশ্বজুড়ে পরিচিত ‘জাফরান’ । ওষুধ প্রসাধনী ও খাবার মুখরোচক করতে এটা ব্যবহৃত হয় । বাংলাদেশের অভিজাত রেঁস্তোরায় মিষ্টিজাতীয় খাবারেও জাফরান ব্যবহৃত হয় । নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য না হলেও জাফরান নিয়ে মানুষের আগ্রহের কমতি নেই । কারণ, এর মূল্য মান ভেদে কেজি প্রতি ১-৭ লাখ টাকা । আবার এ মসলা পণ্যের উৎপাদনও বেশি না ।

বিশ্বজুড়ে এখন বছরে বড়জোড় ৪৫০ টনের কম-বেশি উৎপাদন হয় । এর সিংহভাগ বা ৯০ শতাংশের বেশি উৎপাদন হয় ইরানে । উৎপাদিত পণ্যের ১৫-২০ শতাংশ ইরানে ব্যবহার করা হয়। বাকিটুকু রপ্তানি করে । ইরান থেকে জাফরান আমদানি করে পুনঃরপ্তানি করে স্পেন, সংযুক্ত আরব আমিরাতসহ আরও কয়েকটি দেশ । 

২০১৯ সালে জাফরানের বৈশ্বিক বাজার ছিল ৮৮ কোটি ডলার বা প্রায় ৭,৫০০ কোটি টাকা । বিশ্বে গুটি কয়েক দেশের আবহাওয়া জাফরান চাষের উপযোগী । এক্ষেত্রে ইরান ছাড়া অন্যদেশগুলো হলো ভারত, গ্রিস , আফগানিস্তান, মরক্কো, স্পেন ও ইতালি । 

জাফরান চাষের জন্য প্রচুর জমি দরকার হয় ।  ক্ষেত থেকে ফুল তুলে গর্ভকেশর আলাদা করে জাফরান প্রস্তুুত পর্যন্ত সব কাজই করতে হয় হাতে । এক কেজি জাফরানের জন্য গড়ে দেড় লাখের বেশি জাফরান ফুল দরকার । এ মসলাটির বহু গুণ রয়েছে । জাফরানের প্রতিটি দণ্ডে ভিটামিন, খনিজসহ ৩০০টি উপাদান আছে । আবার জাফরান গাছে ফল হয় না । গাছের মূলে থাকা ‘বালব’ বা ক্রোম নিয়ে রোপণ করতে হয় । 

২৭ জুলাই ২০২০ বিশ্ববাজারে সোনার আউন্স প্রতি দাম ছিল ১৯৩১.১১ মার্কিন ডলার । এতে পেছনে পড়ে যায় স্বর্ণের দামের আগের রেকর্ডটি , যেটি হয়েছিল ৬ সেপ্টেম্বর ২০১১ । ঐদিন প্রতি আউন্স সোনার দাম ছিল ১৯২৩.৭০ ডলার । স্বর্ণের দাম বৃদ্ধির ধারাবাহিকতায় ৪ আগষ্ট ২০২০ ইতিহাসে প্রথমবারের মতো স্বর্ণের দাম ২০০০ ডলারের মাইলফলক অতিক্রম করে ।

Categories
আন্তর্জাতিক

শান্তিতে নোবেল পুরষ্কারের জন্য মনোনীত মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প 

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প শান্তিতে নোবেল পুরষ্কারের জন্য মনোনীত হয়েছেন । সম্প্রতি সংযুক্ত আরব আমিরাতের সাথে ইসরায়েলের ঐতিহাসিক শান্তিচুক্তিতে মধ্যস্থতা করে তিনি এই পুরষ্কারের জন্য মনোনয়ন পেয়েছেন বলে জানিয়েছে স্কাই নিউজ । বুধবার (৯ সেপ্টেম্বর) স্কাই নিউজ এর একটি প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে । ঐতিহাসিক এ শান্তি চুক্তির কারণে ২০২১ সালের জন্য ট্রাম্পকে মনোনীত করা হয় । 

মার্কিন সংবাদমাধ্যম ফক্স নিউজের প্রতিবেদন অনুযায়ী, নরওয়ের রাজনীতিবিদ ক্রিশ্চান টাইব্রিং-জিজেদে এ বছর  নোবেলে পুরষ্কারের জন্য ডোনাল্ড ট্রাম্পের নাম প্রস্তাব করেন । নরওয়ের চারবারের নির্বাচিত এই আইনপ্রণেতা ফক্স নিউজকে জানান, ‘তার (ট্রাম্প) যোগ্যতার জন্য, আমি মনে করি তিনি শান্তিতে নোবেল পুরষ্কারের জন্য মনোনীত অন্যান্য প্রার্থীদের চেয়ে দেশগুলোর মধ্য শান্তি প্রতিষ্ঠায় আরও বেশি চেষ্টা  করেছেন।’

গত আগষ্টে ইসরায়েলের সাথে সম্পর্ক স্বাভাবিক করতে রাজি হয় সংযুক্ত আরব আমিরাত । এই দুই দেশের ‘ঐতিহাসিক চুক্তির’ কথা ঘোষণা করেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প । ইসরায়েলের সাথে কোনো আরব দেশের এই চুক্তি ১৯৪৮ সালে দেশটির স্বাধীনতা ঘোষণা করার পর তৃতীয় ঘটনা এটি । 

মঙ্গলবার হোয়াইট হাউসের এক কর্মকর্তা ঘোষণা করেছেন যে, ট্রাম্প সংযুক্ত আরব আমিরাত ও ইসরায়েলের মধ্যকার সাপর্ককে স্বাভাবিক করার মধ্যপ্রাচ্য চুক্তির জন্য ১৫ সেপ্টেম্বর একটি স্বাক্ষর অনুষ্ঠান করবেন ।

১৯০১ সাল থেকে নোবেল পুরষ্কার দেওয়া হয় । মোট ৬ টি বিষয়ে সম্মানজনক এ পুরষ্কার দেয়া হয় । বিষয়গুলো হলো – পদার্থ বিজ্ঞান, রসায়ন , চিকিৎসা শাস্ত্র, অর্থনীতি, সাহিত্য ও শান্তি । এই বিষয়গুলোর জন্য নোবেল পুরষ্কারকে বিশ্বের সবচেয়ে সম্মানজনক পদক হিসেবে বিবেচনা করা হয় ।  

Categories
আন্তর্জাতিক

মহানবী (সা.) কে নিয়ে কটূক্তি 

মহানবী হযরত মুহাম্মদ (সা.) কে নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে কুরুচ্পিূর্ণ পোস্টের জেরে ভারতের ব্যাঙ্গালুর তে ব্যাপক বিক্ষোব হয়েছে । মঙ্গলবার কংগ্রেসের বিধায়ক অখন্ড শ্রীনিবাস মূর্তির ভাইপো ফেসবুকে ওই পোস্ট দিয়েছিলেন বলে অভিয়োগ ওঠে ।এর প্রতিবাদে রাস্তায় নেমে আসে অসংখ্য মানুষ । অনেকের দাবি এ বিষয়ে পুলিশ অভিযোগ নিতে চায় নি । এরপর থেকেই ধীরে ধীরে সহিংস হয়ে ওঠে বিক্ষোভ । বিক্ষোভকারীরা থানায় হামলা চালায়, গাড়িতে আগুন দেয় । এ সময় পুলিশের গুলিতে তিনজন নিহত হয় । অবমাননাকারীকে আটক করেছে পুলিশ । সংঘর্ষে জড়িতদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়ার হুঁশিয়ারী দিয়েছে মুখ্যমন্ত্রী । 

মঙ্গলবার ( ১১আগষ্ট ) রাতে রণক্ষেত্রে পরিণত হয় নগরীর পূর্ব দিকে অবস্থিত কাওয়ালি বায়রান্ড্র এলাকা । প্রতিবাদকারীরা বিভিন্ন জায়গায় হামলা চালায় । কেজি হাল্লি এবং ডিজি হাল্লি থানায় হামলা চালানো হয় । এতে এক এসপিসহ অন্তত ৬০ পুলিশ কর্মকর্তা আহত হয়েছেন । বিক্ষোভ দমনে পুলিশের গুলিতে এ পর্যন্ত অন্তত তিনজনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। 

এদিন কংগ্রেস নেতা শ্রীনিবাস মূর্তির বাড়ির সামনে দফায় দফায় বিক্ষোভ হয়েছে । ছোড়া হয়েছে ইট – পাথর । উত্তেজিত জনতা পাকিং এ থাকা একটি গাড়িতে আগুন ধরিয়ে দেয় । পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনতে পুলিশ লাঠিচার্জ করে । পরিস্থিতি আরও উওপ্ত হওয়ার তাদের ছত্রভঙ্গ করতে পুলিশ গুলি চালায় । পরে বিক্ষোভকারীরা পুলিশ স্টেশনের সামনে জড়ো হয়ে বিক্ষোভ করে । একইসঙ্গে পুলিশের বেশ কয়েকটি গাড়িতে অগ্নিসংযোগ করা হয় । থানায় রাখা ২০০ টি মোটরসাইকেল ও পুড়িয়ে দেয় তারা । 

ব্যাঙ্গালুরু পুলিশের যুগ্ন কমিশনার ( ক্রাইম) সন্দীপ পাটেল জানিয়েছেন, সহিংসতার ঘটনায় অন্তত ১১০ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে । কংগ্রেস বিধায়কের ভাইপোকেও গ্রেফতার করা হয়েছে । তার দাবি, তিনি ফেসবুকে আপত্তিকর ওই পোস্ট করেননি । ফেসবুক আইডি হ্যাক করে অন্য কেউ এই কাজ করেছে । যদিও পরে সেই পোস্ট টি ডিলিট করে দেওয়া হয়েছে। এক ভিডিও বার্তায় আইন নিজের হাতে তুলে নেওয়া থেকে বিরত থাকতে জনগণের প্রতি আহব্বান জানিয়েছেন রাজ্যর স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বাসভারাজ বোমানিও ।

Categories
আন্তর্জাতিক

বিশ্বের প্রথম করোনা ভ্যাকসিন পুতিনের মেয়ের শরীরে 

বিশ্বে প্রতিদিনই করোনায় আক্রান্তর সংখ্যা হু হু করে বাড়ছে । বহু মানুষের প্রাণহানি ও হচ্ছে । বিশ্বজুড়ে করোনার তান্ডব চললেও এখন প্রর্যন্ত রাশিয়া ছাড়া আর কোনও দেশ করোনার ভ্যাকসিন কিংবা প্রতিষেধক আবিষ্কার করতে পারেনি । তবে বিশ্বের বিভিন্ন দেশের বিজ্ঞানীদের তৈরি অন্তত দুই শতাধিক ভ্যাকসিন পরীক্ষার বিভিন্ন ধাপে রয়েছে । 

রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন বলেছেন , নভেল করোনাভাইরাসের প্রথম ভ্যাকসিনের চূড়ান্ত অনুমোদন দিয়েছে রাশিয়ার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় । আমার মেয়ে ভ্যাকসিনটি গ্রহণ করেছে । তিনি আরো জানিয়েছেন , তাঁর মেয়ে ভ্যাকসিনটি গ্রহণ করার পর সামান্য জ্বরাক্রান্ত হয়েছিল । তবে দ্রুতই তাঁর তাপমাত্রা স্বাভাবিক পর্যায়ে চলে আসে । এখন সে যথেষ্ট ভালো অনুভব করছে । 

রুশ প্রেসিডেন্ট বলেছেন, মস্কোর গামালিয়া ইনস্টিউটের তৈরি করোনার এই ভ্যাকসিন মঙ্গলবার ( ১১ আগষ্ট ) রাশিয়ার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সবুজ সংকেত পেয়েছে । কোভিড – ১৯ এর এই ভ্যাকসিন গণহারে উৎপাদন খুব শিগগিরই শুরু হবে । রাশিয়া যে টিকা তৈরি করেছে , তা স্থায়ী বা টেকসই প্রতিরোধ সক্ষমতা দেখাতে সক্ষম বলে দাবি তাঁর । 

এদিকে রাশিয়ার উপ প্রধানমন্ত্রী ট্যাটিয়ানো গোলিকোভা বলেন, সেপ্টেম্বরের শুরুর ‍দিকে স্বাস্থ্যকর্মীদের মাঝে প্রথম এই ভ্যাকসিন প্রয়োগ করা হবে । তবে সাধারণ জনগনের জন্য ভ্যাকসিনটি সহজলভ্য হবে আগামী বছরের জানুয়ারীর শুরুতে । 

রাশিয়ার স্বাস্থ্য মন্ত্রীকে উদ্ধৃত করে স্পুটনিক নিউজ সম্প্রতি জানায়, ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের তৃতীয় পর্যায়ে থাকা ভ্যাকসিনটি ১২ আগষ্টের মধ্যে অনুমোদন পাওয়ার কথা রয়েছে বলে জানিয়েছে রুশ গণমাধ্যম আরটি । 

টিকা তৈরি ও পরীক্ষা করতে যেখানে কয়েক বছর সময় লেগে যায় সেখানে অনেকটা রাতারাতি শতভাগ সফল টিকা তৈরি নিয়ে শুরু হয়েছে বিতর্ক । নিউইয়র্ক পোস্টের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে , মস্কোতে কিছু স্বাস্থকর্মী ও সরকারি কর্মকর্তাকে টিকা নেওয়ার আমন্ত্রন জানানো হয়েছে । রাশিয়ার দাবি , বিশ্বের প্রথম কোভিড – ১৯ টিকা এটি । ক্লিনিক্যাল পরীক্ষায় এটি নিরাপদ প্রমাণিত হওয়ার পর তা গ্রহণে আমন্ত্রন জানানো হয়েছে । 

Categories
আন্তর্জাতিক

আয়া সুফিয়ার জুমার নামাজে অংশ নিতে হাজার হাজার মানুষের ঢল

গির্জা থেকে মসজিদ,মসজিদ থেকে জাদুঘর , জাদুঘর থেকে পুনরায় মসজিদ । বলছিলাম দেড় হাজার বছরের পুরানো অন্যতম বিশ্ব ঐতিহ্য আয়া সুফিয়ার কথা।সম্প্রতি আয়া সুফিয়াকে পুনরায় আবার মসজিদে রুপান্তর করেছে তুরস্ক । ৮৬ বছর পর আজানের ধ্বনিতে মুখরিত হয় আয়া সুফিয়া সহ আশপাশের এলাকা । ঐতিহাসিক এই মসজিদ শুক্রবার (২৪ জুলাই) ৮৬ বছর পর প্রথমবারের মত হাজারও মুসল্লির উপস্থিতিতে জুমার নামাজ আদায় করা হয় । মসজিদটির এক হাজার মুসল্লী ধারণ ক্ষমতা  থাকলেও আজ জুমার নামাজ আদায় করার জন্য আরও কয়েক হাজার মানুষ ভিড় করেন আয়া সুফিয়ার প্রাঙ্গনসহ রাস্তার আশপাশে । করোনা সংক্রমনরোধে কঠিনভাবে মানা হয় সামাজিক দুরত্বসহ স্বাস্থ্যবিধি । আয়া সোফিয়ায়

১৯৩৪ সালের পর এই প্রথম আয়া সুফিয়ায় নামাজ আদায় করা হয় । ইতিহাসের স্বাক্ষী হতে দেশটির প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোয়ান সবার সঙ্গে জুমার নামাজ আদায় করেন । নামাজের আগে অনুষ্ঠিত হয় বিশেষ দোয়া । এর পূর্বে বিশেষ আকর্ষন ছিল তুর্কি প্রেসিডেন্টের কোরআন তেলোয়াত । তিনি সুমধর কন্ঠে সূরা ফাতেহা ও সূরা বাকারার কিছু অংশ তেলাওয়াত করে মুগ্ধ করেন উপস্থিতি মুসল্লিদেরকে । 

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যমে বিবিসির খবরে বলা হয়েছে, নামাজ আদায় উপলক্ষে আজ শুক্রবার আয়া সুফিয়ায় অনেকেই ভিড় জমান । এর আগে বৃহস্পতিবার, ইস্তাম্বুলের গভর্নর আলী ইয়েলিকায়া বলেন, মুসল্লীরা অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করেছেন, উদ্ধোধনের সময় সবাই সেখানে অংশ নিতে চান । 

আয়া সুফিয়ার জুমার নামাজ

ঐতিহ্যবাহী এই আয়া সুফিয়া নির্মিত হয় ৫৩৭ সালে । ইস্তাম্বুল বিজয়ের আগ পর্যন্ত ৯১৬ বছর এটি গির্জা ছিল । ১৪৫৩ সালের ১ জুন মসজিদে রুপান্তরিত আয়া সুফিয়ায় প্রথমবার জুমার নামাজ অনুষ্ঠিত হয় । ১৯৩৪ সাল পর্যন্ত প্রায় ৪৮২ বছর মসজিদ ছিল এই ঐতিহ্যবাহী আয়া সুফিয়া । এর পর ৮৬ বছর পর্যন্ত ছিল জাদুঘর । ১৯৮৫ সালে জাদুঘর এই আয়া সুফিয়াকে বিশ্ব ঐতিহ্যর তালিকায় সংযুক্ত করে ইউনেস্কো । দেশি বিদেশী পর্যটকদের জন্য তুরস্কের সবচেয়ে দর্শনীয় স্থানগুলোর মধ্যে আয়া সুফিয়া অন্যতম । 

আজ জুমার নামাজের আগে নিরাপত্তা তল্লাশি পেরিয়ে এক হাজার মুসল্লি মসজিদে প্রবেশের অনুমতি পায় । তবে হাজার হাজার মানুষ মসজিদে আশেপাশে জুমার নামাজে অংশগ্রহণ করেন । তুরস্কের প্রেসিডেন্টসহ সরকারি উধ্বর্তন কর্মকর্তারা ও নামাজে অংশগ্রহন করেন ।

Categories
আন্তর্জাতিক

ফাহিম সালেহর হত্যায় গ্রেফতার খুনি হাসপিল

পাঠাওয়ের সহপ্রতিষ্ঠাতা, নাইজেরিয়ার রাইড শেয়ারিং ‘গোকাডা’ ও কলম্বিয়ায় এমন একটি রাইড শেয়ারিং অ্যাপের কোম্পানির মালিক মেধাবি প্রযুক্তিবিদ ফাহিম সালেহ। তিনি চট্রগামে ১৯৮৬ সালে জন্মগ্রহণ করেন । তিনি ইনফরমেশন সিস্টেম নিয়ে আমেরিকার বেন্টলি বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশোনা করেছেন । নিউইয়র্কের ম্যানহাটনে থাকতেন ফাহিম । বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত তরুণ এই উদ্যোক্তাকে নির্মমভাবে খুন করা হয় তার নিজ অ্যাপার্টমেন্টে ।

গত ১৪ জুলাই বিকালে ফাহিম সালেহর নিজের বিলাসবহুল অ্যাপার্টমেন্ট থেকে তার খন্ড বিখন্ড মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ । গোয়েন্দাদের দাবি, ১৩ জুলাই স্থানীয় সময় দুপুরের পর তিনি নির্মম হত্যার শিকার হন । হত্যা করে প্রথম দিন হত্যাকারী চলে যায়। পরদিন আবারো ঐ অ্যাপাটমেন্টে ফিরে আসে । এরপর ইলেকট্রিক করাত দিয়ে ফাহিম সালেহের মরদেহ কয়েক – টুকরা করে সেগুলো ব্যাগে ভরার চেষ্টা করে । ঐ মুহুর্তে ফাহিমের বোন সেই বাড়িতে এসে লবি থেকে কলিংবেল বাজানোর সঙ্গে সঙ্গে পেছনের সিঁড়ি দিয়ে নেমে যান হাসপিল । 

অ্যাসিস্ট্যান্ট ডিসট্রিক্ট অ্যাটর্নি লিন্ডা ফোর্ড আদালতে বলেন, টাইরেস ডেভো হাসপিলই যে ফাহিমকে খুন করেছেন সে বিষেয়ে যথেষ্ট তথ্য প্রমাণ পাওয়া গেছে । ম্যানহাটনের ওয়েস্ট হত স্ট্রিটের হোম ডিপো নামে একটি বড় চেইন স্টোরে যাওয়ার জন্য নিজের ক্রেডিট কার্ড ব্যবহার করে গাড়ি ভাড়া করেন হাসপিল । সেখান থেকেই একটি ইলেকট্রিক করাত এবং পরিষ্কার করার জিনিসপত্র কেনেন তিনি । সকাল ৯ টার দিকে ঐ স্টোরের সার্ভিলেন্স ক্যামেরায় হাসপিলকে এসব জিনিস কিনতে দেখা গেছে । 

ফাহিম সালেহ হত্যার ঘটনায় তার ব্যাক্তিগত সহকারী হাসপিলকে শুক্রবার গ্রেফতার করেছে পুলিশ । শনিবার সন্দেহভাজন খুনি হাসপিলের বিরুদ্ধে চার্জ গঠন করা হয়েছে । এদিন হাসপিলকে যুক্তরাষ্ট্রের ম্যানহাটনের ফেডারেল আদালতে হাজির করা হয় । বিচারক জোনাথান সভেটকি জামিনের সুবিধা ছাড়াই হাসপিলকে আটক রাখার নির্দেশ দিয়েছেন । আগামী ১৭ আগষ্ট আবারো তাকে আদালতে হাজির করার নির্দেশ দিয়েছেন বিচারক । 

ফাহিম সালেহর হত্যায় গ্রেফতার খুনি হাসপিল

অ্যাটর্নি লিন্ডা ফোর্ড ভিডিও কনফারেন্সে আদালতকে বলেন, সিসি ক্যামেরায় ধারণ করা ভিডিওতে দেখা যাওয়া সন্দেহভাজন খুনির পোশাক হাসপিলের ব্রুকলিনের বাড়িতে পাওয়া গেছে । তিনি আরো বলেন, হাসপিল তরুণ প্রযুক্তিবিদ ফাহিম সালেহর অন্তত ৯০ হাজার মার্কিন ডলার চুরি করেছিলেন । তার বিরুদ্ধে পুলিশ বা আইনি আশ্রয় না নিয়ে ফাহিম কিস্তিতে অর্থ ফেরত দেয়ার সুবিধা করে দিয়েছিলেন । গোয়েন্দা বিভাগের প্রধান রডনি হ্যারিসন বলেন, অভিযুক্তব্যাক্তি ফাহিম সালেহর আর্থিক ও ব্যাক্তিগত তত্ত্বাবধান করতেন ।

আসামিকে ধরতে পারায় পরিবারে কিছুটা স্বস্তি এসেছে । আসামীর সর্বোচ্চ শাস্তি দাবি করেছেন তারা । পরিবারের পক্ষ থেকে জানানো হয় করোনা পরিস্তিতির কারণে স্বল্প পরিসরে সামাজিক দুরুত্ব মেনে রবিবার নামাজের জানাযা শেষে দাফন সম্পন্ন করা হবে । 

Categories
আন্তর্জাতিক

পবিত্র মদিনায় মডেলদের অপবিত্র ছবির ফটোশুট 

পৃথিবীর পবিত্রতম স্থান হলো সৌদি আরব । আর এই সৌদি আরবের মদিনায় আল উলা এলাকায় ‘‘ভোগ – অ্যারাবিয়ার’’ আয়োজনে করা হয়েছে মডেল ফটোশুট । আর এই ফটোশুটে আর্ন্তজাতিক খ্যাতিসম্পন্ন সুপার মডেল কেট মসকে দেখা যায় খোলামেলা আঁটসাঁট পোশাকে ।

লেবানীয় ডিজাইনার এলি মিজরাহী আয়োজন করেছেন এই ফটোশুটটির ২৪ ঘন্টা ধরে চলা ওই ফটোশুটে কেট মস সহ আরও অংশ নেন মার্সিয়া কার্লা বসকানো, ক্যানডিস সোয়েনপোল, জর্ডান ডান, জিয়াও ওয়েন এবং অ্যালেক ওয়েকের মতো মডেলরা । মার্কিন যুক্তরাষ্টভিত্তিক জনপ্রিয় ভোগ ম্যাগাজিন তার সৌদি আরব সংস্কারণে গত ৮ জুলাই খোলামেলা পোশাকের এসব ছবি প্রকাশ করেন। 

মুসলমানদের পবিত্র স্থান মদিনার শহর থেকে ৩০০ কিলোমিটারের মাধ্যই ছিল ফটোশুটের এলাকাটি । পবিত্র নগরীর মধ্যে এমন ফটোশুট নিয়ে ওঠেছে প্রবল বিতর্ক । সৌদি আরবের মুসলিম সাম্প্রদায়ের মধ্যে প্রবল আপত্তির সৃষ্টি করেছে এসব খোলামেলা ছবি । সুমাইয়া কামাল নামের এক আরবী নারী টুইট করেন, আল উলা এলাকায় বিদেশি একটি ম্যাগাজিন আমাদের সংস্কৃতিকে অবমাননা করে যে ফটোশুট করেছে,তা বিশ্বাসীদের বিশ্বাসের স্তম্ভ ধরে নাড়া দিয়েছে । ব্যথিত করেছে তাদের হৃদয়কে । মোহাম্মদ তোবা নামক একজন লেখেন, কি আশ্চর্য ধাঁধাঁ ! যখন হাজিয়া সোফিয়ায় আবার আযানের ধ্বনি উঠেছে, ঠিক তখনই নগ্ন নারীদের পৃথিবীর পবিত্রতম বালুকাভূমিতে প্রদর্শন করা হচ্ছে । 

আরেকজন টুইটার ব্যবহারকারী দুঃখ প্রকাশ করে বলেন, সৌদি আরব কর্তৃপক্ষ মদিনার ঐতিহ্যবাহী স্থান আল উলা তে ‘‘ভোগ’’ ম্যাগাজিনকে আন্তর্জাতিক সুপারমডেলদের অগোছালো ফটোশটের অনুমতি দিয়েছে । এটি ছিল অর্ধ-নগ্ন এবং যৌন উত্তেজক ফটোশুট । জানা নাই ভবিষৎতে আর কত আশ্চর্য জনক ঘটনা উপহার ‍দিবে সৌদি আরব । 

এদিকে মিডল ইস্ট মনিটর এর এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, সৌদি আরবে তেলের ‍ওপর থেকে অর্থনৈতিক নির্ভরশীলতা কমিয়ে আনার চেষ্টা করছে সৌদি রাজপরিবার । ভবিষৎতে অর্থনৈতির চাকাকে সচল রাখতে পর্যটন শিল্পের ওপর নজর দিচ্ছে দেশটি । তারই ধারাবাহিকতায় সৌদি পর্যটনকেন্দ্রগুলো জনপ্রিয় করতে এমন ফটোশুটের আয়োজন করা হয়েছে ।